প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাহফুজুর রহমান: এরোদগান যেখানেই হাত দিচ্ছেন সেখানেই সফলতা!

মাহফুজুর রহমান: এরোদগান যেখানেই হাত দিচ্ছেন সেখানেই সফলতা পাচ্ছেন। আন্তর্জাতিক ভূ-রাজনৈতিক কৌশলে রাশিয়া চীন তুরস্ক ও ইরান প্রায় অভিন্ন লক্ষ্যে চলছে বলেই ধারণা করা হয়। তবে রাশিয়া ও চীনের সামরিক ও অর্থনৈতিক সক্ষমতা বেশি থাকলেও তারা উভয়েই তুরস্ক ও ইরানকে খুব মূল্যায়ন করে। আবার ইরান নিজেও তুরস্কের মতামতকে প্রাধান্য দিচ্ছে। অর্থাৎ তুরস্ক আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সামরিকভাবেও সম্ভবত প্রেসিডেন্ট এরোদগানের ভালো রাশির কারণেও সব খানেই সফল হচ্ছে। বলা যায়, তুরস্ক একটি অপ্রতিরোধ্য শক্তি। রাশিয়া থেকে এস ৪০০ ক্রয়ের সময় আমেরিকা তাকে কি ঝাঁকুনিটাই না দিলো কিন্তু এরোদগান অনমনীয়, আরও দৃপ্তকণ্ঠে ঘোষণা করলেন যে, এস ৪০০ ক্রয় অর্ডার আমরা বাতিল করবো না অধিকন্তু আমেরিকার এফ-৩৫ ফাইটারও ক্রয় করতে চাই। সিরিয়াতেও রাশিয়ার সৈন্যদের সাথে প্রায় সংঘর্ষ তৈরি হলেও তুরস্ক সেখানেও দমেনি বরং পুতিনকেই কৌশল নিয়ে সইতে হয়েছে।

লিবিয়াতেও বিদ্রোহী গ্রুপকে পুর্ব থেকে সামরিক সহযোগিতাকারি ফ্রান্স ও রাশিয়ার বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ করে সরকারি বাহিনীর জন্য তুরস্ক সামরিক বাহিনী পাঠালে রাশিয়া সেখানেও সরে আসে, পরে ফ্রান্স এমনিতেই চুপ হয়ে যায়। আর গ্রীসের সাথে সাগরের মালিকানা নিয়ে যে বিবাদ চলছে তাতে ফ্রান্স প্রথম দিকে গ্রিসকে সাপোর্ট দিলেও এখন চুপ। খুব সম্প্রতি আজারবাইজানের সাপোর্টে তুরস্ক সেখানে সামরিক ও অর্থনৈতিক সাহায্য পাঠায়। লক্ষনীয় যে, আগে থেকেই আর্মেনিয়ার সাথে রাশিয়া ও ইরানের সামরিক অর্থনৈতিক সহযোগিতা থাকলেও তুরস্ক যেহেতু আজারবাইজানের সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত তাই তারাও আর্মেনিয়ার পক্ষে থাকেনি। রাশিয়ার একটি সামরিক হেলিকপ্টার আজারবাইজানীদের গোলায় ভূপাতিত হলেও রাশিয়া চুপ থেকেছিলো। অর্থাৎ এরোদগান যেখানেই হাত দিচ্ছেন সেখানেই সফলতা। এবার তুরস্কের হয়তো দক্ষিণ এশিয়ার দিকে রোহিঙ্গাদের দিকে দৃষ্টি দেবার সময়। ফেসুবক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত