প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

লুৎফর রহমান হিমেল: মানুষদের মধ্যে সবচেয়ে জঘন্যভাবে বেচা-বিক্রি হন বুদ্ধিজীবীরা

লুৎফর রহমান হিমেল: [১] চিন্তা করা ভালো। দুশ্চিন্তা করা খারাপ।

[২] ভার্সিটি শিক্ষকদের পদোন্নতির জন্য দুটি পথ আছে। একটি গবেষণা, অন্যটি রাজনীতি। এ যুগে প্রথমটায় আর কাজ হয় না বলে দুই নম্বরে ঝুঁকছেন শিক্ষকরা।

[৩] মানুষও বেচা-বিক্রি হয়। তবে মানুষদের মধ্যে সবচেয়ে জঘন্যভাবে বেচা-বিক্রি হন বুদ্ধিজীবীরা।

[৪] সবখানেই এখন সমিতি আর কমিটি গঠনের ধুম। এসব সমিতি-কমিটি উৎপাদন করছে অসংখ্য নেতা। নেতা বেশি হয়ে যাওয়ায় নেই কর্মী। আর কর্মী না থাকায় নেই কোনো স্বেচ্ছাসেবাও।

[৫] একমাত্র মানুষেরই একটি বিরল গুণ আছে যেটি অন্য প্রাণীদের নেই। গুণটি হলো অকৃতজ্ঞ হতে পারা।

[৬] মরা মাছ স্রোতের অনুকূলে ভেসে চলে। এটি সাঁতার নয়। ভেসে চলাকে সাঁতার কাটা বলে না। জীবিত মাছ উজানে যাওয়ার যুদ্ধকেই বেশি ভালোবাসে। এটিই তার স্বভাব। অথচ মানুষই একমাত্র প্রাণী যাদের বেশিরভাগই স্রোতের অনুকূলে ভেসে চলে।

[৭] মানুষকে খুব কাছে গিয়ে জানতে নেই। বেশিরভাগ মানুষ সম্পর্কে এতোদিন যা ভেবে এসেছেন, কাছে গেলে তার সাথে সেই ভাবনা মেলাতে পারবেন না।

[৮] আলোতে দাঁড়িয়ে অন্ধকারের মানুষগুলোকে চেনা যায় না।

[৯] পৃথিবীটা কষ্টের জায়গা। পৃথিবীর সৃষ্টিই হয়েছে কষ্ট থেকে। কষ্টেভরা পৃথিবীতে সাময়িক কোনো অবস্থা বা ঘটনা যখন কষ্টনাশ বা হ্রাসের কাজ করে, সেই অবস্থাকে আমরা বলি সুখ।

[১০] গরিব মানুষের আকাশে কোনো পূর্ণিমার চাঁদ থাকে না। [লিখতে থাকা সহস্র বচন থেকে]

ফেসবুক থেকে

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত