প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আহসান হাবিব: পৃথিবীর মানুষ এখনো সঠিক পুষ্টি প্রাপ্তি থেকে অনেক দূরে

আহসান হাবিব : পৃথিবীর মানুষ এখনো সঠিক পুষ্টি প্রাপ্তি থেকে অনেক দূরে। একটি নীরোগ সতেজ শরীরের জন্য যে সমস্ত পুষ্টি-উপাদান প্রয়োজন, পৃথিবীর অধিকাংশ মানুষ তা পাওয়া থেকে এখনো বঞ্চিত। যে অসংখ্য অনুপুষ্টি (গরপৎড়-হঁঃৎরবহঃং) দিয়ে আমাদের শরীর গঠিত, তা আমরা প্রতিদিন খাবার থেকে পাই না। এ সম্পর্কে আমাদের ধারণাও প্রায় নেই বললেই চলে। আমাদের দেশে ৩ বেলা ভাত খাওয়াকেই বিশাল ব্যাপার বলে ধরেনি। রাজনৈতিক প্রোপাগান্ডাও রয়েছে। সুষম খাবার বলতে আরও যে প্রয়োজনীয় খাদ্য উপাদান আছে, তা যদি সঠিক পরিমাণে গ্রহণ না করা হয়, তাহলে অচিরেই স্বাস্থ্যহানি ঘটে এবং বিভিন্ন স্বাস্থ্য সমস্যায় আমরা ভুগতে থাকি। অপপুষ্টি দুই ভাবে দেখা দেয় : [১] অপুষ্টি অর্থ্যাৎ পুষ্টির অভাব  [২] অতিরিক্ত পুষ্টি ।

সাধারণভাবে ধরে নেওয়া হয় যে ব্যক্তি সুষম খাবার পাচ্ছে, মানে তার দৈনিক যতোটা দরকার তার যোগান সে ঠিকঠিক পাচ্ছে। এটার ব্যত্যয় ঘটে তখনই যখন সে এই চাহিদার বিপরীতে কম পরিমাণ পেতে শুরু করে। ফলে সময়ের সাথে সাথে এই প্রক্রিয়া চলতে থাকলে শরীরের বিভিন্ন সঞ্চয়ে টান পড়ে, বিভিন্ন রকম উপাদানের রকমফের দেখা দেয়, ফলে শারীরিক ক্রিয়ায় গড়মিল দেখা দিতে শুরু করে। এভাবে চলতে থাকলে একসময় সাংঘাতিক অপুষ্টি দেখা দেয় এবং নানারকম অসুস্থতা বেড়ে চলে, এক সময় মৃত্যু আমাদের দুয়ারে এসে কড়া নাড়ে ।

আবার এর বিপরীত চিত্রও দেখা যায়। একজন সুষম খাদ্য প্রাপ্ত ব্যক্তি যখন প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত খাবার নিতে শুরু করে, তখন নানারকম জটিলতা দেখা দেয়। শরীরের শোষণ বেড়ে যায়, চাহিদাও বেড়ে যেতে শুরু করে। সঞ্চয় বাড়তে থাকে। এই অতিরিক্ত খাদ্য বস্তু জমা হওয়ার কারণে শরীরে এক সময় বিষক্রিয়া দেখা দিতে শুরু করে। সাংঘাতিক অপপুষ্টির শিকার হয়ে স্থুলতা এবং পরিপাকে বিশঙ্খলা নেমে আসে। নানা রকম অসুখ এবং অকালে মৃত্যু একসময় তাকেও তুলে নেয় সুন্দর পৃথিবী থেকে। আসুন আমরা সুষম খাবার সম্পর্কে জানি এবং বৈষম্যে ভরা একটি অমানবিক পৃথিবীকে মানবিক করার লক্ষ্যে লড়াই করি এবং পুষ্টি প্রাপ্তি নিশ্চিত করি। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত