প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ডিএনসির অভিযানে বিপুল পরিমান ইয়াবা ও ফেন্সিডিল উদ্ধার, গ্রেপ্তার সাত

সুজন কৈরী : [২] চট্টগ্রাম, কোতায়ালী ও বগুড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১৫ হাজার ৬০০ পিস ইয়াবা ও ৩২০ বোতল ফেন্সিডিলসহ ৭ জনকে আটক কেরছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর (ডিএনসি)। সেইসঙ্গে জব্দ করা হয়েছে মাদক বিক্রির সোয়া লাখ টাকাও। আটকদের মধ্যে বাবা-ছেলেও রয়েছেন। আটকদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে সংশ্লিষ্ট থানায় পৃথক মামলা দায়ের করা হয়েছে।

[৩] ডিএনসি’র সদর দপ্তরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সুব্রত সরকার শুভ বলেন, বুধবার গভীর রাতে ডিএনসি’র চট্টগ্রাম মেট্রো কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. রাশেদুজ্জামানের তত্তাবধানে কোতোয়ালির ফিসারীঘাট এলাকায় একটি দল অভিযান চালায়। এ সময় মো. জুহার রশীদ সেকান্দার (২১) নামের একজন যুবককে আটক করা হয়। পরে তল্লাশি করে তার পরিহিত প্যান্টের পকেট থেকে ৪ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

[৪] এদিকে বুধবার কক্সবাজারের কৃষি অফিস রোডের হোটেল প্রিন্সের ৩য় তলার একটি কক্ষ থেকে ৬ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে ডিএনসির কক্সবাজার জেলা কার্যালয়ের একটি টিম। এ সময় মোহাম্মদ হাসান (৩৮) ও রিয়াজ উদ্দীন (২০) নামের দুজনকে আটক করা হয়েছে। তারা সম্পর্কে বাবা-ছেলে। আটকদের মধ্যে মোহাম্মদ হাসান এর আগেও ইয়াবাসহ চট্টগ্রামে পুলিশের হাতে এবং তার ছেলে ডিএনসির কক্সবাজার জেলা কার্যালয়ের হাতে আটক হয়ে কারাভোগ করেন। কিন্তু জামিনে বের হয়ে আবারও মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েন।

[৫] ডিএনসি কর্মকর্তা সুব্রত সরকার আরও বলেন, বুধবার রাতে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের মরিচ্যা ঘোনায় অভিযান চালিয়ে ৬০০ পিস ইযাবাসহ আনোয়ারা বেগম (৫৫) নামের একজনকে আটক করা হয়েছে। এ সময় তার কাছ থেকে মাদক বিক্রির ১ লাখ ৮৬০ টাকা জব্দ করা হয়েছে। অভিযানকালে আনোয়ারার ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২০) কৌশলে পালিয়ে যায়। সাদ্দাম এর আগে ইয়াবাসহ ডিএনসির হাতে আটক হয়েছিলেন। একই সময় ওই এলাকায় পৃথক অভিযান চালিয়ে মো. শাহজালাল (৩০) নামের একজনকে ৫ হাজার পিস ইয়াবা ও মাদক বিক্রির ১৪ হাজার ৩০০ টাকাসহ আটক করা হয়। শাহজালাল দীর্ঘ দিন ধরে মাদক ব্যবসা করছিলেন।

[৬] অপরদিকে বৃহস্পতিবার ডিএনসির বগুড়া জেলা কার্যালয়ের একটি টিমের অভিযানে ৩২০ বোতল ফেন্সিডিল ও মাদক পরিবহনে ব্যবহৃত একটি প্রাইভেট কার ও একটি মোটরসাইকেলসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

[৭] এছাড়া বৃহস্পতিবার সকালে চট্টগ্রাম মেট্রো কার্যালয় পরিচালিত চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চালানো হয়। এ সময় সাড়ে ৩ কেজি গাঁজাসহ ১৭ জন মাদক ব্যবসায়ী ও সেবন কারীকে আটক করা হয়। পরে তাদের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড ও অর্থ দন্ড দেন নির্বাহী ম্যাজিস্টেট রেজওনা আরফিন।

সর্বাধিক পঠিত