প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অজয় দাশগুপ্ত: নারী জাগলেই হয়তো কিছু হবে

অজয় দাশগুপ্ত: নোয়াখালীর ঘটনা জেনে আপনি বিচলিত? আমি কিন্তু না। সামাজিক মিডিয়ার এই হা-হুতাশ আর উত্তেজনা কাঁপিয়ে আসা জ্বরের মতো। ডাক্তার জানে দু’একদিনের ভেতর শক্তিশালী তদন্ত কমিটি নামের এন্টিবায়োটিক আর কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না নামের সিরাপ খাওয়ালেই এই উত্তেজনা কমে যাবে। তখন আপনি আমি অপেক্ষা করবো নতুন কোনো নোয়াখালী ঘটনার জন্য। লজ্জা ওদের না আমাদের আসলে। কদিন পরপর এমন ঘটে ওরা দাঁত বের করে, প্যান্ট, লুঙ্গি, পাজামার ভেতর থেকে লিঙ্গ বের করে হাসে আর মিডিয়ার শিরোনাম হয়। আপনি নিজেই দেখুন, এসব ইতর সন্তানের ছবিতে সামাজিক মিডিয়া সয়লাব কিনা। লাভ নেই। কাঁন্দিয়াও লাভ নেই। আহাজারিতেও ফায়দা নেই। সেপ্টেম্বরের ঘটনা অক্টোবরে তামাদি, ঘরে ঘরে আর কতো এমন সেপ্টেম্বর ঘটনা আছে সেটাই বিষয়।

আইন আছে, বিচার কই। বিচার আছে শাস্তি কই? শাস্তি আছে তো প্রতিরোধ কই। কবেই সব ধুয়ে মুছে গেছে। ভালো চিন্তা, ভালো কথা, ভালো কবিতা, ভালো গান, ভালো নেতা, ভালো অভিনেতা, ভালো মানুষ সব ডুবে গেছে, ভেসে আছে শুধু নারী আর নরসুন্দরের বিকৃত যৌন ছুরি। নারী জাগলেই হয়তো কিছু হবে। কিন্তু তাদের জাগাবে কে। কোথায় তাদের ভরসা? নোয়াখালী তো সামাজিক মিডিয়া, ইনবক্স, আলাপ, দেখায়ও ভর করে আছে। কে বাঁচাবে নারী নামের এই মা-বোন জায়া কন্যাদের। তাদের শরীরে যে আরও কিছু থাকে মন থাকে আত্মা থাকে কে শেখাবে আমাদের। হায় নোয়াখালী, হায় নারী; তুমি নিজেই জানো না কোথায় এর শেষ? ফেসবুক থেকে

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত