প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] জলবায়ু রক্ষায় শেষ সুযোগ এনেছিলো অতিমহামারী, কিন্তু তা হেলায় হারিযেছে মানুষ

আসিফুজ্জামান পৃথিল: [২] করোনাভাইরাস বিশ্ব অর্থনীতিকে প্রায় ধ্বংসের কাতারে নিয়ে এসেছে। সরকারগুলো পরিস্থিতি সামাল দিতে ব্যয় করছে ট্রিলিয়ন ট্রিলিয়ন ডলার। সিএনএন এর হাতে আসা কিছু তথ্য বলছে, কিছু জীবাশ্ম জ্বালানী সমৃদ্ধ দেশ তাদের করদাতাদের অর্থ ব্যবহার করছে পরিবেশ দূষণকারী শিল্পে। সিএনএন

[৩] জলবায়ু থিংকট্যাংক নিউক্লাইমেট ইন্সটিটিউট এর প্রতিষ্ঠাতা নিকলাস হোন বলেন, এটা আমাদের একটা সুযোগ ছিলো। আমরা এই সুযোগটা না নিয়ে অর্থের পেছনে ছুটলাম। আমাদের উচিৎ ছিলো এই অর্থগুলো পরিবেশসম্মত ব্যবসায় বিনিয়োগ করা।

[৪] করোনাভাইরাস লকডাউনের সময় বৈশ্বিক গ্যাস নিঃসরণের পরিমাণ কমে গিয়েছিলো। তবে অর্থনৈতিক ধীরগতি ভবিষ্যতে আরও বেশি নিঃসরণের শঙ্কা তৈরি করেছে। ক্ষতি পোষাতে আর পরিবেশ রক্ষায় হয়তো আগ্রহ হারাবেন অনেক ব্যবসায়ী।

[৫] জাতিসংঘও বলছে, অতিমহামারীর সুযোগেও আমাদের ভোগবাদী মনোভাব বিলুপ্ত হয়নি। পরিবেশ রক্ষায় যা সম্ভবত সবচেয়ে জরুরী। এমনকি অনেক দেশ ব্যয় কমাতে পুরোনো কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো আবারও চালুর ঘোষণা দিয়ে দিয়েছে। পোল্যান্ড এই খাতে ইতোমধ্যেই বরাদ্দ দিয়েছে শত শত কোটি ডলার। সম্পাদনা: ইকবাল খান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত