প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] আতংক হওয়ার কিছু নেই মানুষকে নিরাপদে রাখতে ২৪ ঘন্টা মাঠে কাজ করছে পুলিশ

আসাদুজ্জামান বাবুল : [২] গোপালগঞ্জের ক্রাইম জোন হিসেবে পরিচিত মুকসুদপুরে খুনের পরিমান বেড়েছে। পর পর চাঞ্চল্যকর দুটি হত্যাকান্ডের পর স্ব স্ব এলাকার মানুষের মধ্যে এক ধরনের ভয়-ভীতি কাজ করছেন। জীবনের নিরাপক্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন ওই এলাকার মানুষ জানিয়েছেন,গতকাল শনিবার দুপুরে মুকসুদপুর উপজেলার দক্ষিণ জলিরপাড় গ্রামের একটি ধান ক্ষেতের পাশ থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় মঙ্গল সরদার নামে একজন গ্রাম্য চৌকিদারের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত মঙ্গল সরদার (চৌকিদার) মুকসুদপুর উপজেলার বড় ভাটরা গ্রামের মৃত অমৃত লাল সরদার (চৌকিদারের) ছেলে। এরআগে একই উপজেলার দিগনগর ইউনিয়নের ভাজন্দি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠের পাশে অবস্থিত কুমার নদীর কচুরীপানার ভেতর থেকে আব্দুস সালাম নামে এক ব্যাক্তির বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পর পর চাঞ্চল্যকর দুটি হত্যাকান্ডের খবর ছড়িয়ে পড়ার পর সংশ্লিষ্ট এলাকার শিশু- কিশোর ও বৃদ্ধ নারী পুরুষের মধ্যে খুনের আতংক বিরাজ করছে। রাতের বেলা তো দুরের কথা দিনের বেলাও একা কেউ ঘর থেকে বের হচ্ছেনা। অতি জরুরী প্রয়োজনে সঙ্গেঁ লোক নিয়ে ঘর থেকে কেউ বের হলেও বেলা ডোবার আগেই কাজ শেষ করে ঘরে ফিরছেন তারা। মানুষের জীবনের নিরাপত্তা দিতে ব্যাথ পুলিশ প্রশাসন এমন অভিযোগ করে স্থানীয় মানুষ বলছেন, স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী মানুষের অব্যাহত বেপরোয়া আচরন ও সমাজ বিরোধী কাযকলাপের কারনেই মুকসুদপুর উপজেলায় একের এক হত্যাকান্ডসহ নানান ধরনের অপরাধমুলক কমকান্ড ঘটছে। বিশেষ করে মাদক ও নারীনির্যাতন বিরোধী ব্যাক্তিদের কাজের প্রতিবাদকারী এমন ব্যাক্তিরাই গুম ও হত্যাকান্ডেরমত ঘটনাসহ নানান ঘটনার স্বীকার হচ্ছে। চাঞ্চল্যকর দুটি হত্যাকান্ডের পর সংশ্লিষ্ট এলাকার মানুষের মধ্যে একটু ভয়ভীতি কাজ করছে বা করবে এটা একেবারেই স্বাভাবিক ব্যাপার এমন কথা উল্লেখ করে স্থানীয় সিন্দিয়াঘাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইন্সেপেক্টর মো: আবুল বাশার বলেছেন, খুনের আতংকে মানুষ ঘর থেকে বের হতে ভয় পাচ্ছে তা ঠিক নয়।

[৩] পুলিশ প্রশাসন কারো কাছে বন্দি নয় এমন কথা উল্লেখ করে গোপালগঞ্জের পুলিশ সুপার মুহম্মদ সাইদুর রহমান আমাদের এ প্রতিনিধিকে বলেছেন, সুধু গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরই নয়, গোটা দেশের মানুষের জীবনের নিরাপত্তা ও আইনশৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ প্রশাসন ২৪ ঘন্টা মাঠে কাজ করছেন। স্থানীয় মানুষের মধ্যে ভয়ভীতি কাজ করছে এমন কথা প্রত্যাখান করে পুলিশ সুপার মুহম্মদ সাইদুর রহমান আরো বলেন,অপরাধী যে-ই হোক না কেন আইনের আওতায় তাকে আসতেই হবে। আমরা আশাবাদি গত কয়েকদিন আগে ঘটে যাওয়া চাঞ্চল্যকর পুত্রের হাতে পিতা খুনের ঘটনারমত চৌকিদার হত্যাকান্ডের রহস্যও উদঘাটন করে জনসম্মুখে প্রকাশ করতে পারবো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত