প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ঘাতকরা না বুঝলেও বিশ্ব নেতারা ঠিকই বুঝেছিলেন বঙ্গবন্ধুর গুরুত্ব

জেরিন আহমেদ: [২] ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে স্বাধীন বাংলার স্থপতি, স্বাধীনতার ঘোষক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করে ঘাতকদল।

[৩] এই হত্যাকাণ্ডের পর বিভিন্ন সময়ে বিশ্ব-গণমাধ্যম এবং রাষ্ট্রনায়করা তাকে ক্ষণজন্মা মহান পুরুষ হিসেবে আখ্যায়িত করেন।

[৪] ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী বলেছেন, তিনি একজন মহান নেতা ছিলেন। তার অনন্য সাধারণ সাহসিকতা এশিয়া ও আফ্রিকার জনগণের জন্য প্রেরণাদায়ক ছিলো।

[৫] কিউবার বিপ্লবী নেতা ফিদেল ক্যাস্ট্রো বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে বলেছেন, ‘আমি হিমালয়কে দেখেনি, তবে শেখ মুজিবকে দেখেছি।

[৬] ইরাকের সাবেক প্রেসিডেন্ট সাদ্দাম হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হচ্ছেন সমাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামের প্রথম শহীদ। তাই তিনি অমর।

[৭] ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় ২০১৩ সালের ৪ মার্চ ধানমন্ডির ৩২ নম্বর সড়কে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন শেষে মন্তব্য বইয়ে লিখেছিলেন, ‘আমি একজন মহান দূরদর্শী এবং রাষ্ট্রনায়কের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করছি যিনি স্বাধীন, উন্নত এবং গর্বিত বাংলাদেশের দৃঢ় ভিত্তি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।

[৮] পাকিস্তানের সাবেক মেজর জেনারেল তোজাম্মেল হোসেন মালিক তার স্মৃতিকথায় লিখেছেন, ‘বস্তুত মুজিব দেশদ্রোহী ছিলেন না। নিজ জনগণের জন্য তিনি ছিলেন এক মহান দেশপ্রেমিক।’

[৯] আমেরিকান মিশনারী জেনিন লকারবি তার ‘অনডিউটি ইন বাংলাদেশ’ বইয়ে লিখেছেন ‘এমন একজন মানুষের আবির্ভাব ঘটছে, যে অনগ্রসর বাঙালি জাতিকে মুক্তির স্বাদ দেবে, তাঁর নাম শেখ মুজিবুর রহমান, আদর করে ডাকা হয় ‘মুজিব’।

[১০] ব্রিটিশ হাউস অব লর্ডসের সদস্য ও সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী শীর্ষস্থানীয় যোদ্ধা ফেনার ব্রুকওয়ে বলেছেন, সংগ্রামের ইতিহাসে লেনিন, রোজালিনবার্গ, গান্ধী, নকুমা, লুমুমবা, ক্যাস্ট্রো ও আলেন্দে’র সঙ্গে মুজিবের নামও উচ্চরিত হবে। তাকে হত্যা করা ছিল মানব হত্যার চেয়ে অনেক বড় অপরাধ। শেখ মুজিব শুধুমাত্র তাঁর জনগণের রাজনৈতিক স্বাধীনতার জন্য সংগ্রাম করেননি। তিনি তাদের সামাজিক ও অর্থনৈতিক মুক্তির জন্যও সংগ্রাম করেছিলেন। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত