প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘মোদীর বাংলা’ গড়ার ডাক, ৩ কোটি সদস্যপদের অভিযানে বিজেপি

নিউজ ডেস্ক : সদস্যপদ তিন গুণ করার লক্ষ্য নিয়ে নতুন কর্মসূচির সূচনা করল পশ্চিমবঙ্গ বিজেপি। শুক্রবার রাজ্য বিজেপির সদর দফতরে সাংবাদিক সম্মেলন করে ভিডিয়ো প্রকাশ করলেন দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়, রাহুল সিংহেরা। ‘আমার পরিবার বিজেপি পরিবার’ নামের এই কর্মসূচি রূপায়ণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মুখকেই যে সামনে রেখে এগোবে বঙ্গ বিজেপি, তা-ও স্পষ্ট এই ভিডিয়ো থেকে। আনন্দবাজার

চার মিনিট ১৭ সেকেন্ডের এই গানের ভিডিয়ো রাজ্য বিজেপির সাংস্কৃতিক শাখাকে দিয়েই তৈরি করিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। ‘স্বপ্ন মাখা সোনার বাংলা উঠবে জেগে নতুন ভোরে’, এই দিয়ে শুরু হচ্ছে বিজেপির নতুন গান। গোটা ভিডিয়োয় বাঙালিয়ানা এবং বাঙালির নানা আবেগকে ছুঁয়ে যাওয়ার চেষ্টা স্পষ্ট। রবীন্দ্রনাথ রয়েছেন, রয়েছেন স্বামী বিবেকানন্দ। বাউল রয়েছে, আদিবাসী নাচ রয়েছে, রয়েছে বাংলার লোকসংস্কৃতির টুকরো টুকরো উপস্থাপনা। দুর্গাপুজো রয়েছে, ধুনুচি নাচ রয়েছে, হাওড়া ব্রিজ, ট্রাম, কফি হাউসের আড্ডা রয়েছে। আর যত বার রাজনৈতিক মুখেদের তুলে ধরা হয়েছে, তত বারই সব চেয়ে উজ্জ্বল ভাবে দেখানো হয়েছে নরেন্দ্র মোদীর মুখ। গানের পঙ্‌ক্তিতে বাংলাকে ‘মোদীর বাংলা’ বলেও আখ্যা দেওয়া হয়েছে।

বিজেপির প্রকাশ করা এই ভিডিয়োর মূল কথা কী? মূল কথা— পরিবর্তনের ডাক, ‘দুর্নীতি, তোলাবাজি, সিন্ডিকেট’-এর হাত থেকে মুক্তির ডাক। নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে সারা ভারত উন্নয়নের রাস্তায় এগোচ্ছে, বাংলা কেন পিছিয়ে থাকবে? ভিডিয়োয় এই প্রশ্নই তুলতে চেয়েছে বিজেপি। কেন্দ্রে এবং রাজ্যে একই দলের সরকার থাকলে উন্নয়ন সহজ হবে, এই বার্তাও দেওয়ার চেষ্টা হয়েছে।

বিজেপির সর্বভারতীয় নেতাদের মধ্যে মোদীর পাশাপাশি অমিত শাহের জনপ্রিয়তাও যে বাংলার বিজেপি কর্মীদের মধ্যে যথেষ্ট এবং সেই জনপ্রিয়তাকে যে বিজেপি কাজে লাগাতে চায়, ভিডিয়োয় অমিত শাহের নানা ভাষণের দৃশ্যের উজ্জ্বল উপস্থিতিও তা বুঝিয়ে দিচ্ছে। সর্বভারতীয় সভাপতি হিসেবে নড্ডাকেও একাধিক বার দেখা গিয়েছে। আর রাজ্য নেতৃত্বের মধ্যে একমাত্র উজ্জ্বল উপস্থিতি দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের।

যে কর্মসূচির সূচনা ঘোষণা করে এ দিন গানের ভিডিয়ো প্রকাশ করল বিজেপি, ‘আমার পরিবার বিজেপি পরিবার’ নামের সেই কর্মসূচি গত বছরও পালিত হয়েছিল। তবে সেটা একটু অন্য ভাবে রাজ্যের সব বিজেপি নেতা-কর্মীকে নিজেদের বাড়ির সামনে বা ছাদে দলের পতাকা উত্তোলন করতে বলা হয়েছিল ৬ এপ্রিল। এ বার কিন্তু এই কর্মসূচি শুধু দলের নেতা-কর্মীদের অস্তিত্ব জাহির করতে বলার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকছে না। এ বার এই কর্মসূচিকে ব্যবহার করা হচ্ছে সদস্যপদ বাড়ানোর অভিযান হিসেবে।

ভিডিয়োর শেষে একটি ফোন নম্বর দেওয়া হয়েছে, একটি ওয়েব অ্যাড্রেস দেওয়া হয়েছে। ‘বাংলায় প্রকৃত পরিবর্তনের জন্য’ ওই নম্বরে মিস কল দিতে বা ওয়েব অ্যাড্রেসে লগ ইন করতে বলা হয়েছে। রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু বলেছেন, “মিস কলের মাধ্যমে আমরা আগেও সদস্যপদ অভিযান চালিয়েছি। এই কর্মসূচির মাধ্যমে আবার নতুন করে সেটা শুরু করা হল।” বিজেপি সূত্রে জানানো হয়েছে, রাজ্যে ইতিমধ্যেই এক কোটি সদস্য সংগ্রহ করেছে বিজেপি। এ বার ‘আমার পরিবার বিজেপি পরিবার’ কর্মসূচিটি নতুন করে শুরু করে সেই সংখ্যাকে তিন কোটিতে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। সায়ন্তন বসুর কথায়, “আমাদের সদস্যদের বলা হবে, পরিবারের সকলের জন্যই সদস্য পদ নিয়ে নিতে। সদস্যদের অধিকাংশই পরিবার থেকে একা দলের সদস্য হয়েছেন। পরিবারের বাকিরাও যাতে সদস্য হয়ে যান, সেই লক্ষ্যেই এই অভিযান শুরু করা হচ্ছে।”

সর্বাধিক পঠিত