প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনা সংকটেও বিএনপির গুজব-অপপ্রচারে ক্ষুব্ধ বিশিষ্টজনরা

ডেস্ক রিপোর্ট : [২] করোনাভাইরাসের কারণে বাংলাদেশসহ সারাবিশ্ব সংকটে। এই মহামারি পরিস্থিতি মোকাবিলায় দেশের মানুষের জন্য সরকার নানামুখী উদ্যোগ নিয়েছে। কিন্তু বিএনপি দেশের মানুষের এই দুঃসময়ে সাহায্যের হাত না বাড়িয়ে বরং সরকারের বিরুদ্ধে গুজব ছড়িয়ে যাচ্ছে।

তারা সাংগঠনিকভাবে ব্যর্থ হয়ে বারবার রাজপথে কোনো রকম প্রতিবাদ বা প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারেনি। তাই করোনাকালের প্রথম থেকে সরকারের উদ্যোগ ব্যাহত করতে বিএনপি’র একটি সক্রিয় গ্রুপ ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার চালিয়ে মানুষের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি করে।

[৩] ফলে করোনা সংকটে মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে অহেতুক সরকারের সমালোচনা করায় বিএনপি নেতাদের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিশিষ্টজনরা।

চলমান করোনা সংকটে দেশের দুস্থ ও অসহায় ৫০ লাখ পরিবারের মাঝে নগদ আড়াই হাজার টাকা করে ঈদ উপহার দিয়েছে সরকার। জাতীয় সংকটে সরকারের নগদ অর্থ সহায়তা পেয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন উপকারভোগীরা। সরকারের এমন উদ্যোগ দেশের সর্বমহলে প্রশংসিত হলেও বিরোধিতা করে মিথ্যাচার করছে বিএনপি।

[৪] তথ্যসূত্র জানায়, করোনাকালীন খাদ্য, চিকিৎসা ও অন্যান্য সেবা অব্যাহত রেখে দেশবাসীর কাছে প্রশংসিত হচ্ছে সরকার। দুস্থ ও অসহায় মানুষদের দ্বারে দ্বারে খাদ্য ও চিকিৎসাসেবা পৌঁছে দিচ্ছে সরকার। সংকটে দুস্থ ও অসহায় মানুষের মানসিক শক্তি বৃদ্ধি করতে আর্থিক সহায়তা দিয়েছে সরকার। উপকারভোগীদের ডাটা ও মোবাইল নম্বর যাচাই-বাছাই করে দেয়া হয়েছে নগদ অর্থ সহায়তা। অথচ বিএনপির পক্ষ থেকে সরকারের এই প্রচেষ্টাকে বিতর্কিত করতে নানা গুজব ছড়ানো হচ্ছে। জনগণের পাশে না দাঁড়িয়ে বরং জনগণকে বিভ্রান্ত করছে বিএনপি।

একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, জনগণের মাঝে সরকারবিরোধী মনোভাব গড়ে তুলতে কৃত্রিম খাদ্য সংকট নিয়ে কৌশলে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। দেশে খাদ্য মজুদ থাকলেও বিএনপি না বুঝেই মিথ্যাচার করছে। এছাড়া আর্থিক প্রণোদনা নিয়ে তথ্য যাচাই-বাছাই না করেই গুজব ছড়িয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করছেন।

[৫] এদিকে করোনা সংকটে কিছু না করে কেবল সরকারের অহেতুক সমালোচনা করায় বিএনপি নেতাদের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তারা বলছেন, জাতীয় সংকটে বিএনপির এই রাজনৈতিক নোংরামি বন্ধ করা উচিত। মিথ্যাচার করে জনগণকে বিভ্রান্ত করা বন্ধ না করা হলে আগামীতে বিএনপি আরো জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে বলেও মনে করছেন তারা।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড.হাছান মাহমুদ এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব-বিদ্বেষ ছড়ানো ভিন্নমত প্রকাশ করা বোঝায় না। সরকার ভিন্নমতের প্রতি সহনশীল বলেই বিএনপি নেতারা সকাল-বিকাল-সন্ধ্যা সরকারের সমালোচনা করতে পারছেন। কিন্তু মিথ্যাচার ও গুজব ছড়ানো সহ্য করা হবে না।

[৬] তিনি বলেন, সরকার কখনো ভিন্নমত দমনের চেষ্টা করেনি এবং ভবিষ্যতেও করবেও না। কারণ, সরকার মনে করে, ভিন্নমত অবশ্যই থাকবে, সংবিধানে সে অধিকার দেয়া আছে এবং সেটা দেশ পরিচালনায় সহায়ক। কিন্তু বিএনপি নেতারা সে সুযোগ নিয়ে গুজব ও বিদ্বেষকারীদের পক্ষ অবলম্বন করছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত