প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সুশান্ত কান্ডে মুম্বই পুলিশের নজরে এবার পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানসালি

জেরিন আহমেদ : সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পরই বিহারের মুজাফফরপুর আদালতে সঞ্জয় লীলা বনশালির নামে মামলা দায়ের হয়েছে। মুম্বই পুলিশের পক্ষ থেকে তদন্ত এখনও জারি রয়েছে। এযাবৎকাল মোট ২৭ জনকে জেরা করা হয়েছে। তবে পুলিশি সূত্রে খবর, অভিনেতার রহস্যমৃত্যুর তদন্তে এবার মুম্বই পুলিশের নজরে পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালি।

ময়নাতদন্ত এবং ভিসেরা রিপোর্টে ‘আত্মহত্যা’র কথা স্পষ্ট উল্লেখ থাকলেও পেশাগত রেষারেষি কিংবা শত্রুতার বিষয়টিও একেবারে উড়িয়ে দিচ্ছে না পুলিশ প্রশাসন। সম্প্রতি ভারতের মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ আশ্বাস দিয়েছিলেন যে সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে যথাযথ তদন্ত হবে। প্রয়োজনে অভিযোগের ভিত্তিতে খতিয়ে দেখা হবে যে, পেশাগত বিদ্বেষই অভিনেতাকে এমন চরম সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য করেছে কিনা! তার ভিত্তিতেই খুব শিগগিরিই বান্দ্রা থানায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হবে বানসালিকে।

ইতিমধ্যেই বানসালিকে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। তার ভিত্তিতেই আগামী কয়েক দিনের মধ্যে পরিচালককে বান্দ্রা থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানা গিয়েছে। সুশান্তের সঙ্গে তাঁর সিনেমা সংক্রান্ত কী কী চুক্তিপত্র ছিল কিংবা যশরাজ প্রযোজনা সংস্থার সঙ্গে কী কথা হয়েছিল, যাবতীয় বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হবে।

প্রসঙ্গত, অভিনেতার মৃত্যুর পরই জানা গিয়েছে যে বানসালি তার ‘রামলীলা’ ছবির জন্য প্রথমটায় সুশান্তকেই বেছে নিয়েছিলেন। কিন্তু যশরাজ ফিল্মসের সঙ্গে সেসময়ে সুশান্ত চুক্তিবদ্ধ থাকায়, সংশ্লিষ্ট প্রযোজনা সংস্থার কর্ণধার আদিত্য চোপড়া অভিনেতাকে অনুমতি দেননি, সেই ছবিতে কাজ করার। ফলস্বরূপ, প্রস্তাব যায় রণবীর সিংয়ের কাছে।

এক্ষেত্রে উল্লেখ্য, রণবীর সিং কিন্তু যশরাজ ফিল্মসের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ থাকাকালীনও অন্যান্য প্রযোজনা সংস্থার সঙ্গে কাজ করেছেন। সেসময়ে আদিত্য চোপড়া কোনও রকম বাধা দেননি! তাই কেন দুই অভিনেতার সঙ্গে দু’রকম আচার-ব্যবহার? এই প্রশ্ন কিন্তু ইতিমধ্যেই উঠেছে। এবার সেই প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসাবাদ করতেই সঞ্জয় লীলা বনশালিকে ডেকে পাঠানো হচ্ছে বান্দ্রা থানায়।

অন্যদিকে পুলিশি সূত্রে খবর, যশরাজ ফিল্মসের কাস্টিং ডিরেক্টর শানু শর্মাকেও দ্বিতীয়বার জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য ডেকে পাঠানো হবে। গত ২৮ জুন প্রথম ধাপে ঘণ্টা খানেকের জন্য জেরা করা হয়েছিল।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত