প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] হাসনাত আবদুল হাই বললেন, নভেরা আহমেদ শেষপর্যন্ত হামিদুর রহমানের পাশাপাশি শহীদ মিনারের স্থপতি হিসেবে স্বীকৃতি পেলেও অভিমানে দেশে ফেরেননি

দেবদুলাল মুন্না:[২] আজ নভেরা আহমেদের মৃত্যবার্ষিকী। লেখক ও সাবেক সচিব হাসনাত আবদুল হাই বলেন, ১৯৯৭ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নভেরা আহমেদকে একুশে পদকে সম্মানিত করেন। কিন্তু এর আগে এককভাবে হামিদুর রহমানকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের স্থপতি বলা হতো। অথচ নভেরা লন্ডন থেকে ডিপ্লোমা অর্জনের পর হামিদুর রহমানের সাথে দেশে ফিরে শহীদ মিনার নির্মাণের কাজে হাত দেন। তারা একত্রে সেসময়ে বসবাস করতেন। কিন্তু নভেরা স্বীকৃতি না পাওয়ায় প্যারিস চলে যান । আর দেশে ফেরেননি। ২০১৫ সালের মে ওখানেই মারা যান।

[৩]চট্টগ্রামের একটি সম্ভ্রান্ত পরিবারে ১৯৩০ সালে ২৯ মার্চ জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

[৪] ১৯৫৬ থেকে ১৯৬০ সাল পর্যন্ত ১০০ টির বেশি ভাস্কর্য নির্মাণ করেন তিনি। নভেরা আহমেদের প্রথম প্রদর্শনী ১৯৬০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। ১০০ টি ভাস্কর্যের মধ্যে ৩৩ টি ভাস্কর্য বর্তমানে বাংলাদেশ জাতীয় যাদুঘরে স্থাপন করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত