প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] চ্যালেঞ্জের মুখে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি

এল আর বাদল : [২] ভারতের ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলিকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছেন মধ্যপ্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের আজীবন সদস্য সঞ্জীব গুপ্তা।

[৩] রোববার সৌরভ এবং অন্যান্য কর্মকর্তাদের একটি ই-মেইলে গুপ্ত বলেছেন যে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) বোর্ডে মনোনীত হয়ে গেলে বিসিসিআই-এর রুলবুক কাউকে প্রেসিডেন্ট হিসাবে কাজ করার অনুমতি দেয় না। ২৮ মার্চ বিসিসিআই-এর প্রতিনিধি হিসাবে আইসিসি বোর্ডে অন্তর্ভুক্ত হয়ে আইসিসির চেয়ারম্যানের শিগগিরই শূন্য পদের প্রার্থী হয়ে উঠেছেন।

[৪] বোর্ডের সংবিধানের ১৪(৯) ধারায় বলা হয়েছে, এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে যদি কোনো বিসিসিআইয়ের অফিস প্রতিনিধি আইসিসিতে নির্বাচিত হয়। নাহলে বিসিসিআই-ই অফিস প্রতিনিধি ব্যতীত অন্য কাউকে মনোনীত করবে। যেটা রীতিমত হাস্যকর।

[৫] সুপ্রিমকোর্টে বিসিসিআই যে আবেদন করেছিল সেখানে ১৪(৯) ধারার কোনো উল্লেখ নেই। আইনজীবী বীণা মাধবনের মাধ্যমে সুপ্রিমকোর্টে আবেদন করেছিলেন বোর্ডের সচিব অরুণ ধুমল। সেখানে বোর্ডের সংবিধানের ৬.৪, ৬.৫, ৭.৩, ১৫ (৩),(৪), ১৯ (২)্ (৪৫) ধারার সংশোধনী করতে চেয়ে আবেদন করা হয়। গত বছর ডিসেম্বরের ১ তারিখেই বোর্ডের এজিএমে এই সংশোধনী পেশ করার বিষয়ে সম্মত হন বোর্ড কর্তারা।

[৬] সেই আবেদনের সঙ্গেই বলা হয়, বোর্ডের অফিস বিয়ারারদের কুলিং অফে যাওয়ার আগে রাজ্য ক্রিকেট সংস্থার মেয়াদ যেন ধরা না হয়। পাশাপাশি বোর্ডের সিইও-র ক্ষমতা খর্ব করার কথাও জানানো হয়েছে শীর্ষ আদালতকে।

[৭] বর্তমান বোর্ডের রুল অনুযায়ী, বোর্ডের সিইও অতিরিক্ত ক্ষমতার অধিকারী। প্রেসিডেন্ট ও সচিব পদে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও জয় শাহ নির্বাচিত হওয়ার পরই সিইওর ক্ষমতায়নের বিষয়ে সরব হন।

[৮] কোভিড পরবর্তী সময়ে বিসিসিআই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নেতৃত্ব দিতে চায়। সেই জন্যই শশাঙ্ক মনোহরের পরে বিসিসিআইয়ের তরফে সৌরভকে বসানোর তোড়জোড় চলছে। ইতিমধ্যেই আইসিসি চেয়ারম্যান পদে সৌরভকে সমর্থন জানিয়েছেন ডেভিড গাওয়ার, গ্রায়েম স্মিথের মত সাবেকরা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত