প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]বোমা ফাটালো দিল্লি পুলিশ, ২০০০ সালে দুটি ম্যাচ পাতানো হয় ভারতে

স্পোর্টস ডেস্ক : [২] ওই সময়ে ভারত সফরে এসেছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা দল। দক্ষিণ আফ্রিকা দলের নেতৃত্বে ছিলেন প্রয়াত হ্যানসি ক্রনিয়ে। সেই সিরিজে জুয়াড়ি সঞ্জীব চাওলা গ্রেপ্তার হলেও হাইকোর্টের পক্ষ থেকে শাস্তির নির্দেশ না থাকায় তাকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। গত ১৩ মে ‍এ নিয়ে সুপ্রীমকোর্টে আপিল করেছিল তারা, এমনটা জানায় ভারতের সংবাদমাধ্যম ‘ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’।

[৩] ২০০০ সালের সেই সফর নিয়ে নতুন অভিযোগপত্র দাখিল করে দিল্লি পুলিশ। তাদের দাবি, সেই সফরে একটি ওয়ানডে ও একটি টেস্ট পাতানো হয় ভারতে! দিল্লি পুলিশের এই অভিযোগপত্রে মোট সাক্ষীর সংখ্যা ৬৮ জন। এর মধ্যে নাম আছে বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়ার (বিসিসিআই) ওই সময়ের সচিব জয়ন্ত লেলে’র।

[৪] ২০১৩ সালে লেলে মারা যান। সাক্ষী ছাড়াও রেকর্ড করা কথা, অডিও ও ভিডিও ক্যাসেট এবং অন্যান্য নথিপত্র সংযুক্ত করা আছে অভিযোগ পত্রের সঙ্গে। সেই সফরে দুটি টেস্ট ও পাঁচটি ওয়ানডে খেলে দক্ষিণ আফ্রিকা। টেস্ট সিরিজ ২-০ ব্যবধানে জেতে সফরকারি দল। ওয়ানডে সিরিজ অবশ্য ৩-২ ব্যবধানে জেতে যায় ভারত।

[৫] দিল্লি পুলিশের অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, ‘মুম্বাইয়ে প্রথম টেস্ট এবং কোচিতে প্রথম ওয়ানডে পাতানো হয়েছিল। এর ফল অভিযুক্তের স্বার্থের পক্ষে গেছে এবং সাধারণ মানুষের ‍বিপক্ষে। তারা বিশ্বাস করেছে, ওরা নিজেদের সেরাটা দিয়েই খেলেছে।’

[৬] মুম্বাইয়ে সিরিজের প্রথম টেস্টে চার উইকেটে জেতে দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রথম ইনিংসে ভারত সংগ্রহ করে ২২৫ রান। এরপর দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম ইনিংসে ১৭৬ রানে অলআউট হয়। ভারত তাদের দ্বিতীয় ইনিংসে করে ১১৩ রান। এরপর দুই দিন বাকি থাকতেই জেতে যায় প্রোটিয়ারা।

[৭] অভিযোগপত্রে এই ম্যাচ নিয়ে বলা হয়, ‘এক ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকা ২৫০ রানের বেশি করবে না, এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যদিও দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচটা তিন দিনে জিতেছিল এবং তাতে ভারতের বাজে ব্যাটিংয়েরও প্রভাব ছিল। কিন্তু জুয়াড়িদের কাছে দেওয়া কথামতো অভিযুক্ত ক্রনিয়ের দল কোনো ইনিংসেই ২৫০ রান করেনি।’

[৮] এ ছাড়া কোচিতে ওয়ানডে পাতানো নিয়ে দিল্লি পুলিশের অভিযোগপত্রে ক্রনিয়ের উদ্ধৃতি উল্লেখ করা হয়েছে, ‘না, ওরা বলছিল কোচিতে এর মধ্যেই হয়ে গেছে। বাকিরা অবশ্য আমার ওপর রেগে আছে কারণ এখনো টাকা পায়নি।’

[৯] সেই ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকা তিনশ’র বেশি রান তুলেও তিন উইকেটে হারে ভারতের কাছে। ক্রনিয়ে অবশ্য ম্যাচ পাতানোর শাস্তি পেয়ে যান। এরপর ২০০২ সালের পহেলা জুন রহস্যময় বিমান দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয় ক্রনিয়ের।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত