প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] হঠাৎ করে বাসার মেঝে বা দেয়াল ঘেমে যাওয়া কি ভূমিকম্প বা মহাদূর্যোগের লক্ষ্যণ? আসলেই কি তাই??

ডেস্ক রিপোর্ট : [২] হঠাৎ করে বাসার মেঝে বা দেয়াল ঘেমে যাওয়া বা বিন্দু‌ বিন্দু পানি জমা হতে দেখে অনেকেই‌ অবাক হয়ে থাকেন। অনেকেই‌ হয়তো জানার চেষ্টাও‌ করেছেন যে কেন এমন এমন হয়। যদিও অনেকে‌ মনে করেন এটা ভূমিকম্প বা অন্য কোন মহাদূর্যোগের লক্ষ্যণ। আসলেই কি তাই?? আসুন তাহলে জেনে নেয়া যাক এর সঠিক কারণ।

[৩] ঘূর্ণিঝড় আম্পানের কারণে গত কয়েকদিন যাবত দেশের বেশিরভাগ স্থানে বৃষ্টি ও বাতাসের কারণে আবহাওয়া ছিল মোটামুটি শীতল। এছাড়া বাতাসে ছিল প্রচুর জলীয় বাষ্প বা আর্দ্রতা। যার ফলে ঘরের মেঝে বা দেয়ালসহ কাঠের আসবাবপত্র সেই অতিরিক্ত জলীয়বাষ্প শুষে নিয়েছিল। এদিকে আজ সকালে রোদের দেখা পাওয়া যাওয়ায় ঘরের বাইরের তাপমাত্রা দ্রুত বাড়তে থাকে, তবে ঘরের ভেতরের তাপমাত্রা সেঅনুযায়ী বাড়তে পারেনা। ফলাফলসরূপ ঘরে ও বাইরের পরিবেশের মাঝে সৃষ্টি হয় তাপমাত্রার পার্থক্য। ঘরের ভেতরে থাকা আসবাবপত্রের শুষে নেয়া জলীয়বাষ্প বাইরের উত্তাপে বাষ্পীভূত হয়ে বের হয়ে এসে বায়ুমন্ডলে মিশে যেতে চায়। কিন্ত বাতাসে থাকা প্রচুর জলীয়বাষ্পের উপস্থিতি ও বায়ুপ্রবাহ না থাকায় সেটা আর বাতাসে মিশে যেতে পারেনা। এছাড়া আমরা জানি জলীয়বাষ্প শীতল স্থানে ঘনীভূত হয়ে পানির কণায় পরিণত হয়। ঘরের মেঝ বা দেয়াল তূলনামূলক শীতল থাকায় সেখানে বাড়তি জলীয়বাষ্পের কণাগুলো ঘণীভূত হয়ে পানির মত বিন্দু বিন্দু কণায় পরিণত হওয়ার সুযোগ পায়। যেমনটা আমরা ঠান্ডা পানির বোতল বা গ্লাস বাইরে বের করে রাখলে দেখতে পাই।

[৪]এখন নিশ্চই বুঝতে পেরেছেন কেন এমন হয়। আসলে ঘরে ও বাইরে তাপমাত্রার পার্থক্য, বাতাসে অধিক জলীয় বাষ্পের উপস্থিতি এবং বায়ুপ্রবাহ একেবারে কমে গেলে এরকম পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় যা একেবারেই প্রাকৃতিক একটি ঘটনা। সময়ের সাথে সাথে তাপমাত্রার সামঞ্জতা ফিরে এলে আর এই পরিস্থিতি থাকেনা। এরকম অনেক প্রাকৃতিক ঘটনায় আমরা না জানার কারণে আতঙ্কিত হয়ে পড়ি। তাই আমাদের উচিত সঠিক কারণ খুঁজে বের করা।
[সংগ্রহীত]

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত