প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

করোনা দুর্যোগ মোকাবেলায় বেসরকারি হাসপাতালগুলো এগিয়ে এলে সুদিন ফিরবেই

গুলজার হোসেন উজ্জ্বল : রাজধানীর মহাখালিতে অবস্থিত ইউনিভার্সাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (সাবেক আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতাল) একটি ভালো উদ্যোগ নিয়েছে। দুই মাস আগে থেকেই তারা পৃথক ক্যাম্পাসে একটি পুর্ণাঙ্গ কোভিড-১৯ হাসপাতাল চালু করার চেষ্টা করছিলো। বাংলাদেশে এ জাতীয় উদ্যোগ কতটা জটিল সেটা আপনারা জানেন। আমাদের মানবিক আমজনতাই সবার আগে বাধা দিয়েছে। সাথে আছে আরও অনেক জটিলতা।
অনেক চড়াই-উৎরাই ও বাধা পেরিয়ে অবশেষে এটা চালু হতে যাচ্ছে।

 

এই হাসপাতালটি আইনশঙ্খলা বাহিনী তাদের সদস্যদের জন্য ব্যবহার করবেন। পাশাপাশি একটি অংশ থাকবে সাধারণ মানুষের জন্য। সরকার এখানে কোনো প্রণোদনা দিচ্ছে না। হাসপাতালটি চলবে বেসরকারি হাসপাতাল যে নিয়মে চলে সেভাবেই। এটা কোনো ফিল্ড হাসপাতাল হবে না? এখানে আইসিইউ, ভেন্টিলেটর, ডায়ালাইসিস সহ ক্রিটিক্যাল কেয়ারের সব সুবিধাই থাকবে। ইউনিভারসাল মেডিকেল কলেজ ইতোমধ্যে ভালো হাসপাতাল হিসেবে আস্থা অর্জন করেছে। এই দুর্যোগে এরকম একটি স্ট্যান্ডার্ড হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোভিড-১৯ হাসপাতাল চালু করায় আমি আশার আলো দেখতে পাচ্ছি। শুধু তাই নয়, তারা মধ্যবর্তী রোগী(সাস্পেক্টেড)দের জন্যও আলাদা জোন করেছে। এটা কতোটা জরুরি তা ভুক্তভোগী মাত্রই জানে। কদিন আগে আমি নিজেও এর শিকার হয়েছি। এখানে জানিয়ে রাখি, ইউনিভারসাল মেডিকেল কলেজের যে মূল ক্যাম্পাস সেখানে অন্যান্য কার্যক্রম নিয়মমাফিকই চলবে। এরকম সিদ্ধান্তের জন্য কর্তৃপক্ষকে আমি টুপিখোলা অভিবাদন জানাই।

 

আমরা কদিন থেকেই বলছিলাম, বেসরকারি হাসপাতালগুলো এগিয়ে না এলে এই দুর্যোগ মোকাবেলা করা কঠিন হবে। অন্যান্য বেসরকারি হাসপাতালগুলোও এভাবে এগিয়ে আসলে মানুষ বাঁঁচবে, স্বাস্থ্যখাতও বাঁচবে। আমাদের দেশে কোভিডে মৃত্যুহার এখন অবদি অনেক অনেক কম। কিন্তু গত কিছুদিনে যে মানবিক বিপর্যয় লক্ষ্য করেছি তা ভয়ানক। শুধু একটা অর্গানাইজড সিস্টেমের অভাবের কারণে। যাই হোক, তাদের কার্যক্রম এখনো পুরো শুরু হয়নি। একটা গুরুত্বপূর্ণ অংশ বাকি আছে। যে জন্য এই পোস্টটা দিলাম। তাদের কিছু নিবেদিত ডাক্তার, নার্স লাগবে। এই দুঃসময়ে মানুষের কাজে লাগতে পারে এমন তরুণ প্রাণদের আহ্বান জানাই। সুদিন আসবেই?

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত