প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]ক্রিশ্চিয়ানো ফুটবলের রাজা, তাকে সম্মান জানাতেই হবে, তামিমের লাইভে রোহিত

এল আর বাদল : [২] বর্তমান সময়ে ফুটবলের রাজা কে? লিওনেল মেসি না ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, এ নিয়ে এক যুগের বেশি সময় ধওে তর্কবিতর্ক চলছে। কারও কাছে মেসিই শ্রেষ্ঠ তো আবার কেউ রোনালদোকে সেরা মানছেন। তবে ভারতীয় ক্রিকেটের সেরা তারকা রোহিত শর্মা মনে করেন, রোনালদোই ফুলবলের রাজা।

[৩] শুক্রবার তামিম ইকবালের সঙ্গে লাইভে এসে এ কথা জানিয়েছেন ভারতীয় এই ওপেনার। রোহিতের মতো বাংলাদেশের ওয়ানডে দলপতিও রোনালদোর ভক্ত। এমনকি বাংলাদেশের ড্রেসিং রুমেও বার্সেলোনা এবং রিয়াল মাদ্রিদকে নিয়ে তর্ক বিতর্ক হয়।

[৪] রোনালদো এখন ক্যারিয়ারের যে পর্যায়ে দাঁড়িয়ে আছেন সে জন্য তাকে মাথা নিচু করে সম্মান জানাতে চান রোহিত। শুধু পর্তুগালের এই ফুটবলারকেই নন, ক্যারিয়ারের শুরুতে খারাপ সময়কে পেছনে ফেলে যারা রাজত্ব করতে শিখেছেন সবাইকে সম্মান করেন তিনি।

[৫] রোহিত বলেন, রোনালদোকে কে ভালোবাসে না? সে তো ফুটবলের রাজা। সে ক্যারিয়ারে যা করেছে তা অসাধারণ। সেটার জন্য মাথা নিচু করে সম্মান জানাতেই হবে তাকে।

[৬] এটা সহজ না, সে যেখান থেকে উঠে এসেছে, ক্যারিয়ারের শুরুতে অনেক খারাপ সময় গেছে। যাদের এমন পরিস্থিতি ছিল এবং আজ যে উচ্চতায় পৌঁছেছে সবাইকেই আমি সম্মান জানাই। আরও যোগ করেন এই ভারতীয়। -ক্রিকবাজ

[৭] ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আয়োজক ছিল ইংল্যান্ড। সে সময় চলছিল চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালও। কার্ডিফে অনুষ্ঠিত সেই ফাইনাল দেখতে গিয়েছিলেন তামিম।

[৮] ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাসকে ৪-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল রোনালদোর মাদ্রিদ। নিজ চোখে গ্যালারিতে বসে প্রিয় দলের শিরোপা জয়ের উল্লাস দেখেছিলেন বাংলাদেশ ওয়ানডে দলপতি।

[৯] ২০ এবং ৬৪ মিনিটে দুটি গোলও দিয়েছিলেন এই পর্তুগিজ ফুটবলার। যে জন্য নিজেকে ভাগবান দাবি করেছেন তিনি। এই ব্যাপারে তামিম বলেন, ‘আমি অনেক ভাগ্যবান। ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ চলছিল, সে সময় আমরা ইংল্যান্ডে ছিলাম চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির জন্য। কার্ডিফে খেলা হচ্ছিলো, আমি গেছিলাম ম্যাচটা দেখতে।

[১০] ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের এই ম্যাচ দেখার জন্য কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের কাছ থেকে একদিনের ছুটিও নিয়েছিলেন তামিম। ৫ জুন লন্ডনের কেনিংটন ওভালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের আগের দিন উড়াল দিয়ে কার্ডিফে গিয়েছিলেন এই ওপেনার।

[১১] পরের দিন ম্যাচে নেমে অজিদের বিপক্ষে করেন ৯৫ রান। যদিও বৃষ্টির কারণে ১-১ পয়েন্ট ভাগাভাগি করে নিতে হয়েছিল দুই দলকে। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির এই আসরেই প্রথমবারের মতো সেমিফাইনাল খেলেছিল বাংলাদেশ।-সূত্র : ক্রিকফ্রেঞ্জি

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত