প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] প্রবৃদ্ধি অর্জন বড় বিষয় না, জনসাধারণকে ক্ষুধা মুক্ত রাখাই চ্যালেঞ্জ, বললেন মির্জ্জা আজিজ

সাইদ রিপন : [২] গত ৪০ বছরের মধ্যে চলতি অর্থবছর শেষে সর্বনিম্ন প্রবৃদ্ধি অর্জন করবে দক্ষিণ এশীয়ার দেশগুলো। এর মধ্যে ২০১৯-২০ অর্থবছর শেষে মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) বাংলাদেশ ২ শতাংশ থেকে ৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করবে বলে প্রাক্কলন করেছে বিশ্বব্যাংক। বিশ্বব্যাংকের এই পূর্বাভাসকে সঠিক বলে আগামী ২০২১-২২ অর্থবছরে দেশের অর্থনীতি ঘুড়ে দাঁড়াবে বলে জানিয়েছেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্ট ও অর্থনীতিবিদ ড. এ. বি. মির্জ্জা মো. আজিজুল ইসলাম।

[৩] এর আগে মার্চের শুরুতেই এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) আউটলুকে ঘোষণা করেছে চলতি বছর শেষে এ অঞ্চলে সবচেয়ে বেশি প্রবৃদ্ধি অর্জন করবে বাংলাদেশ। এডিবির প্রাক্কলন করেছিলো ৭ দশমিক ৮ শতাংশ।

[৪] এ বিষয়ে মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, এডিবি করোনা পরিস্থিতি বিবেচনা না করেই প্রবৃদ্ধি নিয়ে এ ধরনের প্রাক্কলন করেছে। করোন যেভাবে বিস্তার করেছে তাতে দেশ তথা বিশ্বপ্রবৃদ্ধির ওপর আঘাত আসবে এটাই স্বাভাবিক। এ পরিস্থিতি কবে স্বাভাবিক হবে এটা কেউ জানে না। দেশের প্রবৃদ্ধি কয়েকটা খাতের উপর নির্ভর করে। এখন বিশ্বর সব আমদানি-রপ্তানি সব বন্ধ আছে।

[৫] তিনি বলেন, করোনা প্রভাবে আমদানি-রপ্তানি, রেমিটেন্স, রাজস্ব আহরণ, ব্যাংকিং খাতসহ সব সেক্টরের কার্যক্রমই বন্ধ রয়েছে। যার ফলে ব্যাংকের আমানত ও বেসরকারি খাতে প্রবৃদ্ধি কমে যাচ্ছে।

[৬] এ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে দেশের বিনিয়োগ বাড়াতে হবে, যোগাযোগ, এনার্জি ও পাওয়ার সেক্টর, মেগা প্রকল্পসহ চলমান প্রকল্পগুলো নির্ধারিত সময়ে শেষ করতে পারলে খুব দ্রুতই বাংলাদেশ ঘুরে দাঁড়াবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত