প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে ২৪ ঘণ্টায় ১৮ জনসহ ৫৩ বাংলাদেশির মৃত্যু

মহসীন কবির : [২] প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রাণ হারিয়েছেন কমপক্ষে ৭২ বাংলাদেশি। এর মধ্যে শুধুমাত্র যুক্তরাষ্ট্রেই প্রাণ হারিয়েছেন ৫৩ বাংলাদেশি। গতকাল (৩০ মার্চ) মারা গেছেন সাতজন। যুক্তরাজ্যে মারা গেছেন ১১ জন। ইতালি ও সৌদি আরবে ২ জন করে চারজন এবং স্পেন, কাতার, লিবিয়া ও গাম্বিয়ায় চার বাংলাদেশি প্রাণ হারিয়েছেন। যুমনা টিভি

[৩] ইতিমধ্যে করোনার হানায় অনেক আগেই উৎপত্তিস্থল চীনকে ছাড়িয়ে আক্রান্তের তালিকায় লাখ ছাড়িয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ট্রাম্পের দেশে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৫ হাজার ১১০ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণ গেছে ৯০৮ জনের। যা এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। একুশে টিভি

[৪] নিউইয়র্কে ব্যাপক ভাবে করোনাভাই রাস ছড়িয়ে পড়েছে। নগরের বিভিন্ন এলাকায় বসবাসরত প্রায় প্রতিটি পরিবারের কোনো স্বজন বা পরিচিত মানুষ এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে সোমবার পর্যন্ত (৩০ মার্চ) ৩০ জন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে বেশিরভাগই নিউইয়র্কে। আক্রান্ত ও মৃত্যু সংখ্যা নিয়ে সংবাদমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের প্রচারে অনেকেই অজানা আতঙ্কে ভুগছেন। অনেকেই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ঘরে ফিরছেন বা ঘরে কোনো চিকিৎসা ছাড়াই সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

[৫] ভাইরাসের কারণে প্রাণ হারিয়েছেন আওয়াজবিডি সম্পাদক এবং প্রথম আলো উত্তর আমেরিকার বিশেষ প্রতিনিধি শাহ আহমদের দাদি সাহারা বেগম, মোস্তাক আহমদ, জিল্লুর রহমান, মো. ওয়াজিল্লাহ, মালেকুজ্জামান মানিক, আবদুল মালেক খান, আফজাল আহমদ, মো. মহসিন, রাশেদা আক্তার বিউটি, শিপন মিয়া, আউয়ুব খান, সৈয়দা খাতুন, বদরুল হক আতিক, মহিকুজ্জামান, রহমান স্বপন, আবদুর রউফ, রফিক উদ্দিন ও ফারুক আহমদের মা। প্রথম আলো

[৬] করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একের পর এক প্রবাসী বাংলাদেশির মৃত্যুর ঘটনায় কমিউনিটিতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। এর মধ্যে বাংলা সংবাদমাধ্যমের ইলিয়াস খসরু, ফরিদ আলম ছাড়াও চিকিৎসক আতাউল ওসমানী, সাবেক ছাত্রনেতা শাহাব উদ্দিন, কমিউনিটি নেতা ফরহাদ আহমেদ চৌধুরীসহ অনেকের জন্য স্বজনেরা দোয়া প্রার্থনা করেছেন।

[৭] ইতিমধ্যে করোনার হানায় অনেক আগেই উৎপত্তিস্থল চীনকে ছাড়িয়ে আক্রান্তের তালিকায় লাখ ছাড়িয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ট্রাম্পের দেশে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৫ হাজার ১১০ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণ গেছে ৯০৮ জনের। যা এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড।

[৮] যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মৃত্যুর মিছিলে যুক্ত হয়েছে ১১ জন বাংলাদেশি। আক্রান্ত ও মারা যাওয়াদের সবাই পঞ্চাশোর্ধ্ব। সবশেষ ২৯ মার্চ লন্ডনের এনফিল্ডের একটি হাসপাতালে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মো. সোহেল আহমেদ (৫০) নামে এক প্রবাসী বাংলাদেশি মারা যান। গত শনিবার দুপুর ২টায় লন্ডনের কিং জর্জ হাসপাতালে মারা যান আনোয়ারা বেগম চৌধুরী (৬৫) নামের এক ব্রিটিশ বাংলাদেশি। একইদিন আলম আশরাফ আকন্দ (৫০) নামের আরেক বাংলাদেশি মারা যান। সময় টিভি

[৯] এর আগে শুক্রবার ম্যানচেস্টার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সাঈদ হোসেন জসিম (৬৫) নামে এক বাংলাদেশি। এদিন লন্ডনের স্থানীয় সময় সকাল ৬টায় মো. মনির উদ্দিন (৬০) নামের এক ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান। বুধবার মারা গেছেন হাজী ফখরুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি। তিনি পূর্ব লন্ডনের ডকল্যান্ডে বসবাস করতেন। গত মঙ্গলবার সকাল ১০টায় একই হাসপাতালে মারা যান খসরু মিয়া (৪৯) নামের এক ব্যক্তি। এর আগে গত ২৩ মার্চ ওই হাসপাতালে মৃত্যু হয় টাওয়ার হ্যামলেটসের স্যাটেল স্ট্রিটের বাসিন্দা হাজী জমশেদ আলীর (৮০)।

[১০] ১৬ মার্চ তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে মারা যান যুক্তরাজ্যে সফররত মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক কোষাধ্যক্ষ মাহমুদুর রহমান (৭০)। দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে মৃত্যুবরণ করেন লন্ডনের বাঙালি অধ্যুষিত টাওয়ার হ্যামলেটসের রেহান উদ্দিন (৬৬)। গত ৮ মার্চ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী প্রথম ব্যক্তি ছিলেন ম্যানচেস্টারে বসবাসরত ৬০ বছর বয়সী এক বাংলাদেশি। তিনি পাঁচ থেকে ছয় বছর আগে ইতালি থেকে এসে স্থায়ীভাবে বসবাস করছিলেন ব্রিটেনে।

[১১] করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ইতালিতে অপু নামে আরও এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। সোমবার স্থানীয় সময় বেলা ১টার দিকে দেশটির উত্তরাঞ্চল মিলানের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তার মৃত্যু হয়। তিনি মিলান শহরে ব্যবসা করতেন। তার গ্রামের বাড়ি ঢাকা জেলায়। অন্যদিকে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন আরও চারজন। এর আগে গত ২০ মার্চ মিলান শহরেই করোনায় প্রাণ হারান গোলাম মাওলা নামে আরেক বাংলাদেশি। তিনিও দীর্ঘদিন ধরে সেখানে ব্যবসা করে আসছিলেন।

[১২] করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সৌদি আরবের মদিনায় আফাক হোসাইন নামে এক বাংলাদেশি চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। আজ মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) সকালে মারা যান তিনি। নড়াইলের সন্তান ডা. আফাক হোসাইন প্রায় দুই দশক ধরে মদিনায় সাফা আল-মদিনা ক্লিনিকে কর্মরত ছিলেন। এর আগে গত ২৪ মার্চ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মদিনার আল জাহরা হাসপাতালে মারা যান আরও এক বাংলাদেশি। তার বাড়ি সাভারে।

[১৩] কাতারে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের (৫৭) মৃত্যু হয়েছে। তবে তাঁর নাম জানা যায়নি। গত ২৮ মার্চ তিনি মারা যান বলে কাতারের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম কিউএনএ’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। দেশটিতে ২৮ মার্চ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৯০ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪৫ জন।

[১৪] করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে স্পেনের মাদ্রিদে এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এটি স্পেনে প্রথম কোনো বাংলাদেশির মৃত্যু।বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) রাজধানী মাদ্রিদে ভোর ৪টার দিকে বাসায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। প্রবাসী ওই বাংলাদেশি পরিবার নিয়ে মাদ্রিদে বসবাস করতেন। তার গ্রামের বাড়ি নারায়ণগঞ্জে।

[১৫] করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে লিবিয়ায় একজন ও গাম্বিয়ায় একজন বাংলাদেশি মারা গেছেন। দুই দেশের সরকারের প্রকাশিত তথ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে দুই জন বাংলাদেশির মৃত্যুর খবর জানানো হয়েছে। তবে তাদের ব্যাপারে বিস্তারিত কোনো তথ্য প্রকাশ করেনি দেশ দুটি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত