প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মাস্ক না পরায় বয়স্কদের কান ধরানো এসিল্যান্ড সাইয়েমা হাসান প্রত্যাহার

আনিস তপন : [২] মনিরামপুর উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসানকে প্রত্যাহার করে খুলনা বিভাগীয় কমিশনার কর্যালয়ে সংযুক্ত করে আদেশ জারি করা হয়েছে। অভিযোগের বিষয়ে দুই সদস্য বিশিষ্ট একটি আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।

[৩] অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এই কমিটির প্রধান। কমিটি ৭ কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিবে। কাল রোববার থেকে তদন্ত কমিটি কাজ শুরু করবে। ডিসি যশোর মোহাম্মদ শফিউল আরিফ এসব কথা বলেছেন।

[৪] এ বিষয়ে বিভাগীয় কমিশনার ড. মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার বলেছেন, আপাতত তাকে প্রত্যাহার করে খুলনা বিভাগীয় কমিশনার কর্যালয়ে সংযুক্ত করে আদেশ জারি করা হয়েছে। কাল থেকে তদন্ত করা হবে।

[৫] যাদের প্রতি অন্যায় হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে, তাদের সঙ্গে কথা বলার জন্য ডিসিকে বলা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাদের সঙ্গে কথা বলবেন। আমি মনে করছি নির্যাতিতরা অভাব বা কষ্টে আছে। যদি তেমন হয় তবে তাদের প্রয়োজন অনুযায়ী সহায়তা করতে ডিসিকে নির্দশনা দিয়েছি। কারণ দরিদ্রদের সহায়তার জন্য সরকারি নির্দেশনা রয়েছে। তাছাড়া স্থানীয় প্রশাসনের এমনিতেও স্থানীয় দরিদ্রদের সহায়তার সুযোগ রয়েছে।

[৬] এক প্রশ্নের জবাবে বিভাগীয় কমিশনার বলেন, কোনো কর্মকর্তাকে ক্ষমা চাইতে বলা হয়নি। (ফেসবুকের অপপ্রচার দাবি কমিশনারের) তবে স্থানীয় প্রশাসনকে বলা হয়েছে, নির্যাতিতদের সঙ্গে কথা বলে তাদের সাহায্য করতে।

[৬] করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে অফিস-আদালত বন্ধ রেখে বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া সবাইকে ঘরে থাকার আহ্বান জানাচ্ছে সরকার। আর এটা বাস্তবায়ন করতে সেনাবাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে মাঠ প্রশাসন কাজ করছে।

[৭] শুক্রবার যশোরের বিভিন্ন অঞ্চলে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন সাইয়েমা হাসান। এ সময় মাস্ক না পরায় দুইজন বয়স্ক ব্যক্তিকে কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে নিজের মোবাইল ফোনে সেই ছবি ধারণ করেন তিনি।

[৮] এই ছবি ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় উঠে। সরকারী কর্মকর্তাদের কাণ্ডজ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন তুলেন অনেকে। বয়স্কদের সঙ্গে সাইয়েমার এই আচরণের বিচার দাবি করেন অনেকে।

[৯] জনপ্রশাসন সচিব হারুন বলেন, মনিরামপুরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ওই দুইজন সিনিয়র সিটিজেনের বাড়িয়ে গিয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করে স্যরি বলে আসতে বলেছি। এসিল্যান্ড সাইয়েমার ওই দুইজনের বাড়িয়ে যাওয়ার প্রয়োজন নেই বলে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত