প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বাংলাদেশের খেলা দেখতে বিয়ের আসর থেকে ছুটে এলেন বর

স্পোর্টস ডেস্ক : [২] বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনে সবচেয়ে জনপ্রিয় ক্রিকেট নিঃসন্দেহে বলা যায়। গতকাল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে ম্যাচের শেষ ম্যাচে তা আরেকবার প্রমাণিত হলো। ম্যাচটি দেখতে নববধূকে ফেলেই সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে স্টেডিয়ামে চলে আসেন এক বর। ক্রিকেটের পাঁড় ভক্ত এই বরের নাম আলী হায়দার লাভলু। বসবাস করেন যুক্তরাষ্ট্রে।

[৩] লাভলুর বাড়ি সিলেটের বিশ্বনাথের বুকশাইল গ্রামে। প্রেমিকার সাথে পারিবারিকভাবে গাঁটছড়া বাঁধতে ৪-৫ দিন আগে দেশে পা রাখেন এই প্রবাসী। প্রিয়তমা যেভাবে আকর্ষণ করে, ক্রিকেটও কোনো অংশে কম নয়। ঘরের মাঠে লড়ছে জাতীয় দল। লাভলু মাঠে বসে খেলা দেখার সুযোগ হাতছাড়া করতে নারাজ।

[৪] তাই তো বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সেরে নববধূকে বাসায় রেখেই চলে এলেন স্টেডিয়ামে। তিনি অবশ্য একা নন, তার সাথে যেন পুরো বরযাত্রী। এমনকি স্ত্রীর ছোট ভাই অর্থাৎ শ্যালককেও দেখা গেল তার সঙ্গে, যে দুলাভাইর এমন পাগলামিতে মুগ্ধ।

[৫] লাভলু এ ব্যাপারে বলেন ‘আমি ক্রিকেটের বড় ভক্ত। আজকেই বিয়ে করেছি। বিয়ে করেই সরাসরি স্টেডিয়ামে চলে এসেছি, স্ত্রীকে বাসায় রেখে। মাশরাফি, তামিম, রিয়াদের বড় ভক্ত আমি। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ দলেরই ভক্ত।’

[৬] ১১ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে থাকেন লাভলু। ফ্লোরিডায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও বাংলাদেশের মধ্যকার টি-টোয়েন্টি সিরিজ উপভোগ করেছিলেন মাঠে বসে। বিয়ের দিন খেলা দেখার লোভ সামলাতে পারেননি। স্টেডিয়ামে যতক্ষণ ছিলেন, বারবার কল আসছিল মুঠোফোনে।

[৭] লাভলুর শালা ফাহিম আহমেদ জানান, ‘সবাই একসাথে চলে এসেছি। এমন দুলাভাই পেয়ে আমি আনন্দিত। দুলাভাইকে নিয়ে গর্বিত। এমন দেশপ্রেম সবার থাকা দরকার।’

[৭] লাভলুর ঘনিষ্ঠ আত্মীয় শামসুজ্জামান শিপন বলেন, ‘বিয়ের জন্য দেশে এসেছেন। তবে সবচেয়ে মজার বিষয় হল, বিয়ের মঞ্চে থাকতেই একটু পর পর আমাকে ডাক দিচ্ছিলেন; খেলার আপডেট জিজ্ঞেস করছিলেন। যেই না কমিউনিটি সেন্টারে বিয়ের প্রাথমিক কাজ শেষ হল, বউকে বাসায় নিয়ে রাখলেন, তখনই সাথে সাথে বিয়ের গাড়িতে করেই স্টেডিয়ামে চলে এলেন খেলা দেখতে।’

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত