প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সিএএ নিয়ে কথা বলতে চাই না, ভারত সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে, ধর্মীয় স্বাধীনতা রক্ষার জন্য ‘অসামান্য কাজ’ করছেন মোদী বললেন ট্রাম্প

রাশিদ রিয়াজ : [২] নাগরিকত্ব সংশোধন আইন নিয়ে তাঁর অবস্থান সম্পর্কে প্রশ্নের উত্তরে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, “আমি সিএএ নিয়ে আলোচনা করতে চাই না, আমি তা ভারতের ওপর ছাড়তে চাই। আশা করছি ভারত সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে।” ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন নাগরিকত্ব সংশোধন আইন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। ধর্মীয় স্বাধীনতা নিয়ে কথা বললেও সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে মুখ খুললেন না ডোনাল্ড ট্রাম্প। উল্লেখ্য, ট্রাম্পের ভারত সফরের মধ্যেই সিএএ-কে ঘিরে জ্বলছে দিল্লি। এনডিটিভি/ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস/ আনন্দবাজার

[৩] তিনি বলেন, “মানুষের ধর্মীয় স্বাধীনতা চান প্রধানমন্ত্রী মোদি”। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, “আমরা ধর্মীয় স্বাধীনতা নিয়ে কথা বলেছি। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, তিনি মানুষের ধর্মীয় স্বাধীনতা চান। তাঁরা এই নিয়ে খুবই পরিশ্রম করছেন। আমি ব্যক্তিগত আক্রমণের কথা শুনেছি, তবে তা নিয়ে আলোচনা করিনি। এটা ভারতে”। নাগরিকত্ব সংশোধন আইন নিয়ে তাঁর অবস্থান সম্পর্কে প্রশ্নের উত্তরে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, “আমি তা আলোচনা করতে চাই না, আমি তা ভারতের ওপর ছাড়তে চাই। আশা করি, ভারতের মানুষের জন্য তারা সঠিক সিদ্ধান্ত নেবে।ধর্মীয় স্বাধনীতা যাতে সকলে পান, সেই কাজই করছেন মোদী”, বৈঠক শেষে এমনটাই জানালেন ট্রাম্প।

[৪] আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয় ট্রাম্প বলেছেন, ধর্মীয় স্বাধীনতা রক্ষার জন্য ‘অসামান্য কাজ’ করছেন মোদী। তিনি খুবই শান্ত এবং ধার্মিক। তবে এই ‘অসামান্য কাজ’ সত্ত্বেও মঙ্গলবার গভীর রাতে ভারত-আমেরিকার যে যৌথ বিবৃতিটি প্রকাশ করা হল, তাতে ‘স্বাধীনতার গুরুত্ব’, ‘সমস্ত নাগরিকের সমান অধিকার’, ‘মানবাধিকার’, ‘আইনের শাসনের’ মতো বিষয়গুলি একেবারে গোড়াতেই জায়গা করে নিল। কূটনৈতিক শিবিরের মতে, ভারতের মাটিতে দাঁড়িয়ে ট্রাম্প মোদীকে ধর্মীয় উদারতার প্রতীক হিসেবে তুলে ধরলেও যৌথ বিবৃতিতে আমেরিকার চাপেই উপরোক্ত বিষয়গুলি রাখতে হয়েছে নয়াদিল্লিকে। ট্রাম্প মুখে না বললেও বিষয়গুলি নিয়ে ভারতের সাম্প্রতিক ভূমিকায় মার্কিন ‘উদ্বেগ’ এ ভাবেই জায়গা করে নিল যৌথ কূটনৈতিক দলিলটিতে।

[৪] মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনে পা দিয়েছে নাগরিকত্ব আইন নিয়ে দিল্লিতে সংঘর্ষ, মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ১৩ এ। উল্লেখ্য, ভারতে আসার আগেই হোয়াইট হাউসের তরফে জানানো হয়েছিল, ধর্মীয় স্বাধীনতা নিয়ে কথা বলতে পারেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ঘিরে যেভাবে বেশ কয়েকদিন ধরে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে অশান্তি ছড়িয়েছে, এই আবহে এ বিষয়ে ট্রাম্পের আলোচনা তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করেছিল কূটনৈতিক মহলের একাংশ। তবে এ ইস্যুতে এদিন মোদীর যেভাবে দরাজ প্রশংসা করলেন ট্রাম্প, তা উল্লেখযোগ্য বলে মনে করা হচ্ছে।

[৫] ডিসেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে সংসদে পাশ হয় বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইনটি, সেটিকে, মুসলিম বিরোধী বলে মন্তব্য করেছেন সমালোচকরা, তারপর থেকেই শুরু হয়েছে বিক্ষোভ, দিল্লি সংঘর্ষের আগেই ২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

[৬] উত্তর পূর্ব দিল্লির বিভিন্ন জায়গা থেকে হিংসার খবর পাওয়া গিয়েছে, কালো ধোঁয়ায়া ছেয়ে গিয়েছে রাজধানীর আকাশ।পদস্থ পুলিশকর্তা অলোক কুমার বলেন, “পুলিশকে আক্রমণ করছে বিক্ষোভকারীরা, যেখানে তাঁরা রয়েছেন, যেখানে পুলিশ নেই, সেখানে একে অন্যের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছে”।

[৭] মৌজপুরের একজন সংবাদসংস্থা পিটিআইকে বলেন, “কোনও জায়গায় পুলিশের উপস্থিতি খুবই কম। সংঘর্ষকারীরা মানুষকে হুমকি দিয়ে বেড়াচ্ছে, দোকানপাট ভাঙচুর করছে”।

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত