প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে ইভিএমএ ভোট প্রদানে জটিলতায় পড়েছেন ভোটাররা

তাপসী রাবেয়া : ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশননের শ্যামলী রিং রোডের ২৯ নং ওযার্ডে সকালেই বন্ধ ছিল ইভিএম মেশিন। সকাল আটটা থেকে ভোটাররা লাইনে দাড়িয়ে ভোট দেওয়া শুরু করে। ভোট শুরুর প্রায় ২০ মিনিট পরে ৫ নং কক্ষে ইভিএম মেশিন যান্ত্রিক ক্রটি দেখা দেয়। এরপর সেনাবাহিনীর কতর্ব্যরতরা মেশিনের যান্ত্রিক ক্রটি সরানোর জন্য চেষ্টা করে। তারাও ব্যর্থ হলে ইসির লোকজন এসে যান্ত্রিক ক্রুটি দূর করে।
এসময় ভোটের লাইনে দাড়িয়ে থাকা ভোটাররা নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। কেউ বলেন, ভোট দেয়া শুরু হতেই মেশিন নষ্ট। আগেই তো ভাল ছিল। খালি টিপসই দিতাম।

মোহাম্মদপুর নূরজাহান রোডের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কেন্দ্রে সকাল ৮টায় অডিট কার্ড প্রিন্ট করে শূন্য ভোট গণনা সবার সামনে দেখিয়ে ভোট গ্রহণ প্রক্রিয়া শুরু হয়। কেন্দ্রের ১ নম্বর কক্ষে মেশিনে কাগজ আটকে যাওয়ায় ভোট গ্রহণ শুরু হয় প্রায় ৪০ মিনিট পর। এসময় ভোট কক্ষের বাইরে ভোটারদের বিরক্ত হয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

বেশ কয়েকজন ভোটার বিষয়টিকে ‘বিরক্তিকর’ বলে উল্লেখ্য করেন। তারা বলেন, সকাল ৮টার দিকে ভোট দিতে আসলেও এই দীর্ঘসময় তাকে অপেক্ষা করতে হয়েছে শুধুমাত্র মেশিনের সমস্যার কারণে।

বিলম্বের বিষয়ে জানতে চাইলে এই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন,একটু টেকনিক্যাল প্রবলেম ছিল। যখন প্রিন্ট বের হচ্ছিল তখন ভেতরে কাগজটি আটকে যায়। তখন পুরো মেশিনটি বন্ধন করে আবারও চালু করতে হয়েছে।

পাশের একটি কেন্দ্রেও মেশিনে ফিঙ্গার প্রিন্ট পড়ার সমস্যার কথা জানালেন ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার। প্রাইমারি স্কুলের ঠিক পাশে বেঙ্গল মিডিয়াম হাই স্কুলের প্রিজাইডিং অফিসার মো. রেজাউর রহমান বলেন, ‘ মেশিনের শুরুতে একটু সমস্যা দিচ্ছিল। মূল সমস্যাটা ইভিএম মেশিনে, ফিঙ্গার প্রিন্ট ঠিক মতো মিলছে না।

সিদ্ধেশ্বরী গার্লস কলেজ কেন্দ্রে কয়েক জন ভোটার জানান তাদের এনআইডি কার্ড আছে ১০৫ এ এসএমএস করলে ভোটার তালিকা নম্বর, কেন্দ্রের নাম বলছে কিন্তু ইভিএম মেশিনের তাদের পরিচয় আসছে না । কার্ড পাঞ্চও হচ্ছে না।এমনকি এধরনের সমস্যায় নির্বাচন কমিশনের কোনো নির্দেশনা নেই।

সর্বাধিক পঠিত