প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পানিতে পাউডার দুধ মিশিয়ে হচ্ছে পাস্তুরিত তরল দুধ

যুগান্তর : দেশের সব নামি-দামি উৎপাদনকারীরা ফলাও করে বিজ্ঞাপন দিয়ে সেগুলোকে প্যাকেটজাত করে পাস্তুরিত দুধ বলে বিক্রি করছে। আর সরলবিশ্বাসে মানুষ এসব কিনে প্রতারিত হচ্ছেন। অথচ বিষয়টি জেনেও নীরব ভূমিকা পালন করছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। স¤প্রতি এমন তথ্য উঠে এসেছে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশনের (বিএসটিআই) ‘মিল্ক অ্যান্ড মিল্ক প্রোডাক্টস’ শাখা কমিটির সভায়। যেখানে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ, বিশেষজ্ঞ এবং পাস্তুরিত দুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, ওই সভায় পাস্তুরিত তরল দুধের ‘এসএনএফ’ (সলিড নট ফ্যাট) সমন্বয়ের জন্য ‘স্কিমড মিল্ক পাউডার’ ব্যবহার না করার সুপারিশ করা হয়। তখন এ ক্ষেত্রে বাদ সাধেন সভায় উপস্থিত বিভিন্ন তরল দুধ উৎপাদন ও বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা। তারা জানান, তরল দুধে এসএনএফের মাত্রা ৮ শতাংশসহ অন্যান্য প্যারামিটার ঠিক রাখতেই পাস্তুরিত দুধের সঙ্গে স্কিমড মিল্ক পাউডার ব্যবহার করা হয়। বর্ষাকালে গরুর খাবারের তারতম্য ঘটায় এসএনএফের মাত্রা কম থাকে। সেটি সমন্বয় করতে স্কিমড মিল্ক পাউডার ব্যবহার করতে হয়।

কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পানিতে পাউডার দুধ মিশিয়ে তৈরি করা দুধকে পাস্তুরিত বলে বিক্রি করা দেশ ও দেশের মানুষের সঙ্গে প্রতারণা। এমনটি করা হলে অবশ্যই তা প্যাকেটের গায়ে উল্লেখ করতে হবে। পাস্তুরিত বলে বিক্রি করা যাবে না।

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেইরি বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. হারুন-অর রশীদ বলেন, বিশুদ্ধ তরল দুধে এসএনএফের মাত্রা কখনোই ৮ শতাংশের কম পাওয়া যায় না। তাই এসএনএফের ন্যূনতম মাত্রা ৮ শতাংশ বজায় রাখতে স্কিমড মিল্ক পাউডার ব্যবহারের কোনো প্রয়োজন নেই। এ ক্ষেত্রে তরল দুধ উৎপাদনকারীদের সঙ্গে আন্তর্জাতিক তথ্য সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। অনুলিখন : মাজহারুল ইসলাম

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত