প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঠাকুরগাঁও‌য়ে নতুন আতংক চেতনা নাশক স্প্রে বাড়িতে টাকা-স্বর্ণালংকার লুট

সাদ্দাম হো‌সেন,ঠাকুরগাঁও : ঠাকুরগাঁওয়ে নতুন আতঙ্কের নাম চেতনানাশক স্প্রে। কৌশলে ঘরে প্রবেশ করে অথবা ঘরের বাইরে থেকে ওই স্প্রে নিক্ষেপ করে নগদ টাকা ও মালামাল লুটে নিচ্ছে দুবৃর্ত্তরা । সর্বশান্ত হচ্ছে এলাকার মানুষ ।

মঙ্গলবার সদর উপজেলার সালন্দর ইউনিয়নের আরাজি সিং পাড়া গ্রামের শরৎ চন্দ্রের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটেছে । শরতের ভাইয়ের ছেলে ভুপতি রায় বলেন, তার চাচাসহ পরিবারের ৫ জন দুপুর হলেও ঘুম থেকে উঠেনি । বাড়িতে এক ভিক্ষুক প্রবেশ করে দেখে শরৎ ও তার স্ত্রী কুমতি রানী বারান্দায় পড়ে আছে । ওই ভিক্ষুকের মুখে খবর শোনে বাড়ি গিয়ে শরতের ছেলে-মেয়ে সহ ৫জনকে অজ্ঞান অবস্থায় ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ।শরতের ছেলে গোপাল চন্দ্র রায় জানায়, বাড়ির মালামালখোয়া গেছে কিনা এটা তারা জানে না । কারণ আমরা পরিবারের সবাই সজ্ঞাহীন ছিলাম। এখনও আমরা চোখ খুলে তাকাতে পারছিনা । উঠে দাঁড়ালে পড়ে যাচ্ছি । এর কয়েকদিন আগে সদর উপজেলার জগন্নাথপুর বদলীপাড়া গ্রামের আব্দুল হকের বাড়িতে একই ঘটনা ঘটে । পরিবারের সদস্যরা অচেতন হয়ে পড়লে

দুর্বৃত্তরা জানালা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে নগদ টাকা ও স্বর্ন অংলকার লুট করে নিয়ে যায় । এ ঘটনার ১৫-২০দিন আগে বড়গাঁও ইউনিয়নের বদ্বেশরী গ্রামের আব্দুর রশিদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ২ লাখ টাকা খোয়া গেছে । এর কিছুদিন পর পাশের এলাকা চামেশ্বরী হাজীপাড়া গ্রামের নমিজউদ্দিনের
বাড়িতে একই ঘটনা ঘটে । নাজিমউদ্দিন বলেন , রাতের খাবার খেয়ে পরিবারের সবাই ঘুমিয়ে পড়ি । পর দিন বেলা গড়িয়ে গেলেও আমরা কিছুই বলতে পারিনি । দুবৃর্ত্তরা এ ঘটনা ঘটিয়ে মহিষ বিক্রির ৩ লাখ টাকা ও স্বর্ন অলংকার লুট করে নিয়ে যায় । খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, একই ঘটনা ঘটে সদর উপজেলার আকচা ইউপির দেবীগঞ্জ গ্রামের মাস্টার বাড়িসহ পীরগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে ।

ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসক ডা. হাবিব-ই-রসুল লিটন বলেন ওই ৫জনকে চেতনা নাশক রাসায়নিক পদার্থ খাবারের মিশিয়ে বা অন্য কোন উপায়ে অজ্ঞান করা হয়েছে অসৎ উদ্দেশ্যে । তিনি আরও বলেন, হাসপাতালে এধরণের রোগী প্রায় ভর্তি হচ্ছে ।
এ বিষয়ে পুলিশ সুপার মোহা. মনিরুজ্জামান বলেন এই চক্রের একটি গ্যাং’য়ের সদস্য দের রাণীশংকৈল উপজেলা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে । অজ্ঞান পার্টিকে ধরতে পুলিশ কাজ করছে । সম্পাদনা : তন্নীমা আক্তার

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত