প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সুন্দরবনে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ মাসে ১৭ জলদস্যু নিহত

মহসীন কবির : সুন্দরবনের বিভিন্ন পয়েন্টে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। গত ৪ মাসে ১৮ জন জলদস্যু নিহত হয়েছেন। এসসময় তাদের কাজ থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

সবশেষ ২৮ মে রাতে সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের জংড়া খালে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দস্যু হাসান বাহিনীর প্রধানসহ চার সদস্য নিহত হয়েছেন। র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সিনিয়র সহকারী পরিচালক এএসপি মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

০৯ মে সুন্দরবনে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক দস্যু নিহত হয়েছে। চাঁদপাই রেঞ্জের ডাকাতিয়া খালে এ ঘটনা ঘটে। নিহত দস্যু ‘গরিবের বন্ধু’ বাহিনীর সদস্য বলে র‌্যাব জানায়। এ বন্দুকযুদ্ধের পর র‌্যাব ঘটনাস্থল থেকে দস্যুদের ব্যবহৃত দেশি-বিদেশি ৩টি আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করে।

০৬ মে পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের খেন্তামারি খালে র‌্যাব-৬ ও বনদস্যুদের মধ্যে ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনায় তিনজন বনদস্যু নিহত হয়েছেন। র‌্যাবের বলছে, নিহত ব্যক্তিদের একজন বনদস্যু রানা বাহিনীর প্রধান এবং বাকি দুজন এই বাহিনীর সদস্য। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে র‌্যাব চারটি আগ্নেয়াস্ত্র, কয়েকটি তাজা গুলি ও একটি ট্রলার উদ্ধার করে। নিহতরা হলেন- এ সময় বনদস্যু বাহিনীর প্রধান পান্না ওরফে রানা (২৮), কামরুজ্জামান (৩৯) ও জুলহাস (৩২)
০১ মাচ সাতক্ষীরা রেঞ্জের পশ্চিম সুন্দরবনে র‌্যাব-৬ এর সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে দুই বনদস্যু নিহত হয়েছে। এরা হলেন- শ্যামনগর উপজেলার পাতাখালি চন্ডিপুর গ্রামের বাহিনী প্রধান সাহেব আলী গাজী (৩৫) ও তার সেকেন্ড ইন কমান্ড আশাশুনি থানার বাগালি গ্রামের হাবিবুর রহমান ঢালি (২৮)। র‌্যাব-৬ এর অধিনায়ক লে. কমান্ডার জাহিদ এ তথ্য জানিয়েছেন।

২৮ ফেব্রুয়াারি সুন্দরবনের সাতক্ষীরা রেঞ্জের কলাগাছি এলাকায় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুজন ‘বনদস্যু’ নিহত হয়েছে। র‌্যাব জানিয়েছে, এ ঘটনায় নিহতরা হলেন- বনদস্যু সাহেব আলী বাহিনীর প্রধান সাহেব আলী (৩৫) ও তার সেকেন্ড-ইন কমান্ড হাবিবুর রহমান (২৮)। সাতক্ষীরা রেঞ্জের কলাগাছি এলাকায় গোলাগুলির এ ঘটনা ঘটে।

২৫ ফেব্রুয়ারি সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে জলদস্যু প্রধান আরিফুল ওরফে রাজুসহ চারজন নিহত হয়েছেন। সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের জোংড়া খালে র‌্যাব-৮ এর সঙ্গে এ বন্দুকযুদ্ধে এ ঘটনা ঘটে। দুপুরে র‌্যাব হেডকোয়াটার্সের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইং থেকে মোবাইলে পাঠানো এক ক্ষুদে বার্তা এ তথ্য জানানো হয়। মর‌্যাব ৮ এর অধিনায়ক আতিকা ইসলাম জানিয়েছেন, পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের জোংড়ার খাল এলাকায় র‌্যাব টহল শুরু করলে বনদস্যু আরিফুল বাহিনী র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে থাকে। র‌্যাব ও পাল্টাগুলি ছুঁড়ে। ঘণ্টাব্যাপী বন্দুকযুদ্ধের পর দসস্যুরা পিছু হটে। পরে র‌্যাব সদস্যরা ওই এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে আরিফ বাহিনীর প্রধানসহ চার দস্যুর মরদেহ উদ্ধার করে। নিহতরা হলেন- মোংলার সিগনাল টাওয়ারের দক্ষিণ চরের আ. আলিম (২৫), রাজু (২২), সোহেল (৩০) ও রুবেল (২৫)।

১৮ ফেব্রুয়াারি সুন্দরবনে কোস্টগার্ডের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ বনদস্যু আছাবুর বাহিনীর এক সদস্য (২৬) নিহত হয়েছেন। তবে তার নাম জানা যায়নি। সুন্দরবনের সোনাইমুখি খালসংলগ্ন এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এ সময় ৪টি দেশীয় একনলা বন্দুক ও এক রাউন্ড তাজা গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত