প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খাদ্যে ভেজাল এবং মানুষ-অমানুষ

আহসান হাবীব : মানুষ কী করে খাদ্যে ভেজাল মেশায়? চিন্তার কোনো অসৎ স্তরে নামলে মানুষ এটা করতে পারে, আমার মাথায় ঢুকে না? আমি নিজেকে নিয়ে চিন্তা করলাম, আমি কি আমার কাজে অসৎ? আমি কি জেনেশুনে কাউকে ঠকাই? আমি একজন সাধারণ চিকিৎসক, আমি প্রতিদিন কয়েকজন রোগী দেখি, ভাবলাম আমি কি তাদের ঠকাই কোনোভাবে? উত্তর পেলাম, ‘না, জ্ঞানত ঠকাই না। ইচ্ছা করে ভুল ওষুধ প্রয়োগ করি না কিংবা মিছে আশ্বাস দিই না, এমনকি আমি কোনো অলৌকিক শক্তির আড়াল নিই না, কিংবা লাভের আশায় ইচ্ছাকৃত বিভিন্ন পরীক্ষা করতে দেয় না’।

শুনতে পাই গরুর মাংসে কাপড়ের রঙ মিশিয়ে দেয়া হচ্ছে, শাকে রঙ মাখিয়ে দেয়া হচ্ছে, আমে কার্বাইড দেয়া হচ্ছে, মাছে ফরমালিন দেয়া হচ্ছে, দইয়ে, মিষ্টিতে কি সব মিশিয়ে দেয়া হচ্ছে! প্রতিটি খাদ্যে মানুষের জন্য ক্ষতিকর উপাদান মিশিয়ে দেয়া হচ্ছে। জেনেশুনে এটা করা হচ্ছে। উদ্দেশ্য একটাই ‘অন্যকে ঠকানো’। এটাকে ঠকানো বললে ভুল হবে, এর সঙ্গে যুক্ত আছে অন্যকে অসুস্থ করে ফেলা। এটা অন্যায় নয় অপরাধ। এসব অপরাধ একজন সুস্থ মানুষ কি করে করতে পারে? কী করে জেনেশুনে সে অন্য মানুষকে অসুস্থ করার জন্য খাদ্যে ভেজাল মেশাতে পারে? এই দেশের মানুষের মতো অসৎ, অসভ্য, নিকৃষ্ট মানুষ কি সত্যি পৃথিবীতে আছে? ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত