প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দুই মাসে দশ সন্তানকে হত্যা করেছেন মা-বাবা, সন্তান ফেলে পালিয়েছে পাঁচ মা

মহসীন কবির: সন্তানকে হত্যা করে মায়ের আত্মহত্যা, সদ্যজাত শিশুকে নর্দমা কিংবা ড্রেনে ফেলে দেওয়া, শ্বাসরোধ করে হত্যা করা, সন্তান ফেলে মা পালিয়ে যাওয়া ঘটনা ঘটছে। সমাজবিজ্ঞানীরা বলছেন, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ভালবাসা ও বিশ্বাসের ঘাটতি, অবাধ মেলামেশা, মুঠোফোন, ভীনদেশি আকাশ সংস্কৃতি, যৌথ পরিবারের অনুপস্থিতি, পরিবারে ধর্ম ও নৈতিকতা চর্চার অভাব ও সামাজিক অবক্ষয় এর জন্য দায়ী। গত দুই মাসে ১০ সন্তানকে হত্যা করেছেন মা-বাবা, সন্তান ফেলে পালিয়েছে পাঁচ মা।

২৭ মে চার দিন বয়সী এক নবজাতককে হাসপাতালে রেখে পালিয়ে গেছেন তার মা। নবজাতক অসুস্থ থাকায় তাকে এখন বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নবজাতক ইউনিটে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ২১ মে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে এই হাসপাতালে নবজাতকের জন্ম দেন ওই মা। ২৬ মে সন্তার জন্ম দেওয়ার বাথরুমের টয়লেটের ভেন্টিলেটর দিয়ে বাইরে ফেলে দিয়েছেন মা। জানা যায়, দুই বিয়ে করেছে মেয়েটির মা। সে তার মায়ের প্রথম স্বামীর সন্তান। বাসায় মা ও সৎবাবা শাহ আলমের সঙ্গে থাকতো। মেয়েটির সৎকাকা (শাহ আলমের ছোট ভাই) বিল্লাল হোসেন সম্প্রতি দেশে ফিরে কয়েক মাসের জন্য এই বাসায় ছিলেন। সে সময় তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কের কারণে সে গর্ভবতী হয়। এরপর মা তাকে গর্ভপাতের জন্য চাপ দেয়। মেয়েটির প্রসব বেদনা ওঠলে সে টয়লেটে গিয়ে নিজেই সন্তান প্রসব করেন।

২৬ মে যশোরের শার্শা উপজেলায় দুই সস্তানকে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছেন এক নারী। উপজেলার কায়বা ইউনিয়নের চালিতাবাড়ীয়া দীঘা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- ওই গ্রামের চা দোকানি ইব্রাহিমের স্ত্রী হামিদা খাতুন (৩৫), তার মেয়ে শরিফা খাতুন (১২) ও ছেলে সোহান হোসেন (৫)। ২৬ মে দুই মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছেন শফিকুল ইসলাম নামে এক বাবা। আটকের পর তিনি পুলিশের কাছে দুই সন্তানকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। নিহতরা হলো- মনোহরদী চালাকচর গ্রামের শফিকুল ইসলামের মেয়ে তাইন (১১) ও তাইবা (৪)। ২ মে বগুড়ায় পাঁচ মাস বয়সী এক শিশুকন্যাকে টয়লেটের কুপে ফেলে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে ওই শিশুর মায়ের বিরুদ্ধে। শহরের মালগ্রামে দক্ষিণপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে বলে। নিহত ওই শিশুর নাম জামিয়া জান্নাত জিয়াম। এই ঘটনায় ওই শিশুর মা মৌসুমী আকতারকে (২৮) আটক করেছে পুলিশ।

২১ মে সন্তান জন্ম দেয়ার পর সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নবজাতক শিশুকে রেখে পালিয়ে গেছেন বাবা মা। মা বাবা পালানোর পর অসুস্থ নবজাতককে চিকিৎসা দিয়ে হাজির করা হয় আদালতে। সব কিছু বিবেচনা করে আদালত নবজাতক শিশুটিকে এক পুলিশ কনস্টেবলের জিম্মায় দিয়েছেন। ১৯ মে অন্যের বাসায় আশ্রয় নিয়ে রাতে থাকার পর নেত্রকোনায় নিজের সদ্য গর্ভজাত ছেলে সন্তানকে রেখে পালিয়ে গেছেন অজ্ঞাত পরিচয়ের এক বাকপ্রতিবন্ধী মা। নেত্রকোনা পৌর শহরের জয়নগর এলাকার বাসিন্দা আশ্রয়দাতা ওই বাসার গৃহবধূ আমেনা আক্তার। ১৪ মে রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানার আগারগাঁওয়ে শিশু হাসপাতালের বাথরুম থেকে জীবিত একটি নবজাতক (কন্যা) উদ্ধার করা হয় এ ঘটনায় থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

৩০ এপ্রিল চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার সরফভাটা এলাকায় দুই মেয়েকে বিষ খাইয়ে আত্মহত্যা করেছেন মা।
নিহতরা হলেন- স্থানীয় বাসিন্দা মো. নূর নবীর স্ত্রী ডেইজি আকতার, মেয়ে ইভা আকতার ও ইসরাত নূর। ২১ এপ্রিল জান্নাতুল নামে ছয় বছর বয়সী মেয়েকে হত্যা করেছে তার মা। ঘটনাটি ঝিনাইদহের শৈলকুপা শহরের হাজামপাড়ার। নিহত শিশুটির বাবা বকুল হোসেন এবং মা আলেয়া বেগম। মেয়ে হত্যার অভিযোগে আলেয়া বেগমকে আটক করেছে পুলিশ। জান্নাতুল বাবা-মায়ের একমাত্র মেয়ে ছিল। তার বাবা পেশায় শ্রমিক। ১৮ এপ্রিল সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে মেয়েকে গলাটিপে হত্যা করে মা ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। উপজেলায় ক্ষিদ্রমাটিয়া পশ্চিম পাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন বেলকুচি উপজেলার ক্ষিদ্রমাটিয়া গ্রামের আব্দুল কাদেরের (মাস্টার) স্ত্রী রোজিনা খাতুন (৩৬) ও তার মেয়ে কানিজ ফাতেমা (৮)। ৪ এপ্রিল মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার উমেদপুর ইউনিয়নের পশ্চিম কাঁচিকাটা গ্রামের একটি বাসা থেকে এক মা ও তার শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহরা হলেন- মা রেবা খাতুন (২৫) ও শিশুপুত্র রাইয়ানের (২)। । প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, সন্তানকে হত্যা করে, এরপর নিজে আত্মহত্যা করেছেন ওই নারী।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত