প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রধানমন্ত্রীকে ডাকসুর আজীবন সদস্য করতে নুরের আপত্তি (ভিডিও)

শিমুল মাহমুদ:  ডাকসু’র ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন, বৈঠকে আলোচনা হয়েছে প্রধানমন্ত্রীকে আজীবন সদস্য করার, কিন্তু এ বিষয়ে কোন সমাধানে এখনো পর্যন্ত পৌঁছায় নি। যেহেতু এই নির্বাচনে প্রশ্নবিদ্ধ। আমি মনে করি না প্রধানমন্ত্রীকে এখানে আজীবন সদস্য পদ দেওয়া উচিত। শনিবার বেলা ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদে (ডাকসু) নবনির্বাচিত কার্যকরী পর্ষদের সভায় এ কথা বলেন।

‌‌ডাকসু ভিপি বলেন, আমরা বলেছি প্রধানমন্ত্রী অত্যন্ত সম্মানীয় ব্যক্তি। তিনি সর্বোচ্চ নির্বাহী প্রধান। এখানে ডাকসুর আজীবন সদস্য পদ দেওয়া তার জন্য বড় কিছু নয়। আমরা যখন দায়িত্ব নিচ্ছি তখন আমার ভাই বোনেরা এই নির্বাচনকে প্রত্যাখ্যান করে মিছিল ও মানববন্ধন করছে। তারা পুনর্নির্বাচনের দাবিতে এই মানববন্ধন করছে। আমি তাদেরকে সমর্থন জানিয়েছি। আমি ভিসি স্যারকে বলেছি নির্বাচনে কারচুপির যে অনিয়ম হয়েছে তার সঠিক তদন্ত করতে। সঠিক তদন্ত হলে এ কারচুপির বিষয় গুলোর বেরিয়ে আসবে।’

এই সময় তিনি আরো বলেন, যেহেতু এই নির্বাচনটি সর্বজনীনভাবে গ্রহণযোগ্য হয়নি, শিক্ষার্থীদের বড় একটি অংশ এ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। এই বিতর্কিত নির্বাচনে আমরা চাই না মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আজীবন সদস্য পথ দেওয়া হোক।

নুর বলেন, আমি দায়িত্ব নিয়েছি শুধু মাত্র পুনর্নির্বাচন সহজে যৌক্তিক আন্দোলন রয়েছে সেগুলো আদায় করার জন্যই আমি কিন্তু বলিনি পুনর্নির্বাচন চাইনি। বলা রয়েছে সুতরাং আমি ভিপি পদে দায়িত্ব থেকে পুনর্নির্বাচনের দাবি নিয়ে কথা বলবো।

জিএস গোলাম রাব্বানী বলেন, আজকে আমাদের প্রথম এক্সিকিউটিভ মিটিং ছিল। মিটিং এর শুরুতে আমারা জাতির শেষ্ঠ বাঙ্গালিদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করি। এরপর নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী সদস্যদের পরিচয় পর্ব এবং প্রত্যেকে বক্তব্য রাখেন। এরপর ডাকসু ভিপি কাছে আমরা দায়িত্ব গ্রহণ করি।

এছাড়া বৈঠকে ডাকসুর একটি অভিষেক অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত হয়েছে। অনুষ্ঠানটি হতে হয়তো কিছুদিন সময় লাগবে। আমাদের প্রধানমন্ত্রী যেহেতু আমাদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রাক্তন শিক্ষার্থী তাই আমরা তাকে আজীবন সদস্য করার প্রস্তাবনা দিয়েছি। ইতিপূর্বে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে আজীবন সদস্য করা হয়েছিল। দ্বিতীয় ব্যক্তি হিসেবে আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আজীবন সদস্য করার প্রস্তাবনা করি। প্রাথমিকভাবে ২৫ সদস্যের মধ্যে ২৪ জন সিদ্ধান্ত দিয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আজীবন সদস্য করার।

এছাড়া শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়ের জন্য আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় রিকশা ও সাইকেলের আলাদা লেন এবং ভাড়া নির্ধারণ, ভারী যান চলাচলের ক্ষেত্রে আলাদা ব্যবস্থা গ্রহণসহ। রিক্সা চালকদের ড্রেস সহ নির্ধারিত ভাড়া সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিভিন্ন আবাসিক এলাকার নাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ৩০০ থেকে সাড়ে তিনশ রিকশা চালানোর লাইসেন্স দেয়া হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত