প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঈশ্বরদীতে বেড়া ভেঙে ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ

সেলিম আহমেদ: পাবনা ঈশ্বরদীর লক্ষিকুন্ডা গ্রামে ঘরের বেড়া ভেঙে ঢুকে ৭ম শ্রেণীর এক স্কুলছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। রোববার রাতে অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামি তুষারকে (২০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মামলার এজাহার ও স্কুলছাত্রীর চাচা বাদী এনামুল প্রামানিকের দেয়া তথ্য মতে, ওই নির্যাতিতার উপজেলার লক্ষিকুন্ডা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী।

বিদ্যালয়ে যাওয়ার সময় একই এলাকার বাদশা প্রামানিকের বখাটে ছেলে তুষার ও তার বন্ধু রনি (১৯) এবং শাকিল (২১) মিলে ওই ছাত্রীকে উত্যক্ত করতো। বিষয়টি ওই ছাত্রী তার অভিভাবকদের মাধ্যমে তুষার ও তার অপর দুই বন্ধুর অভিভাবকদের জানায়।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শনিবার রাতে তুষার ও তার সহযোগি বন্ধু রনি ও শাকিলকে সঙ্গে নিয়ে ওই ছাত্রীর শোয়ার ঘরের বেড়া ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে। অস্ত্রের মুখে ভয় দেখিয়ে ওই ছাত্রীর মুখ গামছা দিয়ে বেঁধে বাড়ির পাশে আমিন উদ্দিন বিশ্বাসের আম বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করে ফেলে রেখে যায়।

এরপর রোববার সকাল থেকে সারাদিনব্যাপী বিষয়টি ধামা চাপা দেয়ার জন্য ধর্ষক তুষার, রনি ও শাকিলের পরিবারের পক্ষ থেকে ভয়ভীতি দেখানো হয়।

ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী জানান, এ ঘটনায় ধর্ষিতার চাচা বাদি হয়ে তুষার, রনি ও শাকিলের বিরুদ্ধে থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেছেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামি তুষারকে গ্রেফতার করেছে। ওই স্কুলছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়েছে। গতকাল সোমবার তুষারকে জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অপর দুই আসামিকে গ্রেফতারের প্রচেষ্টা অব্যহত আছে। সম্পাদনা : মুরাদ হাসান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত