প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দেশে উন্নয়নের সঙ্গে গণতন্ত্রেরও দরকার বলে মনে করেন এম হাফিজউদ্দিন খান

স্মৃতি খানম :  তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা এম হাফিজইদ্দিন খান বলেন, নতুন সংসদ গঠন হয়েছে এবং নিয়ম অনুযায়ী যেভাবেই হোক, তারা পাঁচ বছর সংসদ চালিয়ে যাবে, যেটি তারা গত টার্মেও করেছিলো। এখানে আসলে নির্বাচনী পরিবেশ ও গণতন্ত্রের ভিতটি এমনভাবে ভেঙে দেয়া হয়েছে, বিরোধী শক্তি দাঁড়ানোর সুযোগই পাচ্ছে না। একইসঙ্গে বিরোধী জোটকে বড় কোনো আন্দোলন গড়ে তোলার সুযোগই দেয়া হচ্ছে না। এটি কিন্তু এক হিসেবে গণতন্ত্রেরই ক্ষতি। ফলে এখন যারা বিরোধী দল হিসেবে আছে, তাদের জন্য মানুষের কাছে যাওয়া এবং মানুষকে নিয়ে গণতন্ত্র চর্চা বা তাদের সঙ্গে নিজেদের একীভূত করার যে একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া, তা করতে পারাটা সহজ হবে বলে মনে হয় না। এটি শুধু বাংলাদেশের বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপির ক্ষতি, এমন নয়। এটি সামগ্রিকভাবে বাংলাদেশের রাজনীতি ও গণতন্ত্রের জন্যই একটি মন্দ ব্যাপার। সূত্র: কালের কণ্ঠ

একটি স্বাধীন দেশের জন্য গণতন্ত্র খুবই দরকারি বিষয়। তা সে উন্নয়ন হোক বা সুশাসন তৈরির ক্ষেত্রে। একটি গণতান্ত্রিক দেশের যাত্রা বা একে এগিয়ে নিতে সবচেয়ে বড় যে জিনিসটি প্রয়োজন, তা হচ্ছে সুন্দর ও সুষ্ঠু উপায়ে নির্বাচন। একটি গ্রহণযোগ্য, ফেয়ার নির্বাচন। সেটি তো হচ্ছে না অনেকদিন ধরেই। গণতন্ত্র তাহলে কীভাবে আশা করা যায়? এটি তো সম্ভব নয়। কাজেই কী আর বলার আছে। আমরা গণতান্ত্রিক পদ্ধতির দিক থেকে পিছিয়ে আছি এবং দিন দিন আরো পিছিয়ে যাচ্ছি। গণতান্ত্রিক কাঠামো এবং প্রক্রিয়ায় যদি সঠিক উপায়ে কোনো কিছু চলতে না পারে, তাহলে তো আমরা বেশিদূর এগোতে পারবো না। কী আর করা। এভাবেই চলে আসছে। চলতে থাকবে। কিন্তু এটিও ঠিক, এভাবে বেশিদিন চলা সম্ভব নয় বা উচিতও নয়।

একটি দেশে গণতন্ত্রের চর্চা না থাকলে এবং সংসদে বিরোধী দলের অনুপস্থিতি শুভ কিছু বয়ে আনতে পারে না। সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসেবে যারা সংসদে যাবে তারা যেকোনো বিষয়ে নিজেদের মতো করে বিল বা আইন পাস করে নেবে। এতে তো বিরোধী দলের বলার বা করার কিছু নেই। এটি একটি বড় মুশকিল। এতে রাজনৈতিক দলের হয়তো কোনো ক্ষতি হলো না। কিন্তু দূর থেকে চিন্তা করলে এটি গণতন্ত্রের ক্ষতি। এই ক্ষতির ফলে যে প্রভাবটি পড়বে সেটি সরাসরি দেখা না গেলেও দীর্ঘমেয়াদি একটি প্রভাব জিইয়ে রাখে।

আমরা যেটি মনে করি, দেশের উন্নয়ন অবশ্যই দরকার। কিন্তু গণতন্ত্রেরও দরকার। গণতন্ত্রহীন উন্নয়ন খুব একটা সুফল বয়ে আনে না। এজন্য আমরা বারবার বলে আসছি কিংবা আমাদের চাওয়া তো একটিই গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠা। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হলে আইনের শাসনও প্রতিষ্ঠিত হবে। দেশ এগিয়ে যাবে। তখন উন্নয়নটিও বিশেষ গুরুত্ব পাবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত