প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রামগঞ্জে আ.লীগের সমাবেশ থেকে ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী সেলিমকে গ্রেফতারের দাবি

জহিরুল ইসলাম শিবলু,লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ড. আনোয়ার হোসেন খানের নির্বাচনী জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন লক্ষ্মীপুর-১ রামগঞ্জ আসনে ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী এলডিপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিমকে সন্ত্রাসী আখ্যা দিয়ে তাকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন প্রশাসনের প্রতি। অন্যথায় রামগঞ্জে নির্বাচনের মাঠ অশান্ত হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের আগে, নির্বাচনের দিন ও নির্বাচনের পরে শাহাদাত হোসেন সেলিমের নির্দেশে রামগঞ্জ উপজেলায় বিএনপি-জামায়াতের নেতা-কর্মীরা তান্ডব চালিয়েছে। তারা রামগঞ্জে ৪৫টি স্কুল পুঁড়িয়েছে, রাস্তাঘাট ও গাছ কেটেছে। সাধারণ মানুষকে মেরে হাত-পা ভেঙ্গে দিয়েছে। তাদের হাত থেকে তখন কেউ রক্ষা পায়নি। তিনি শাহাদাত হোসেন সেলিমকে সন্ত্রাসী আখ্য দিয়ে বলেন, তার হুকুমেই রামগঞ্জে বিএনপি-জামায়াতের নেতা-কর্মীরা সন্ত্রাসী কার্যকলা চালাচ্ছে। তা-ছাড়া এখন বর্তমানে শাহাদাত হোসেন সেলিম অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে ঘুরছেন। তার কারনে শান্ত নির্বাচনী মাঠ অশান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের লক্ষ্যে স্কুল পোঁড়ানা, রাস্তা-গাছ কাটার মামলায় তাকে হুকুমের আসামী করে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে শাহাদাত হোসেন সেলিমকে গ্রেফতারের দাবী জানিয়েছেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, রামগঞ্জে বিএনপির আনেক ত্যাগী নেতা রয়েছে, তাদেরকে বাদ দিয়ে বিএনপি ভাঙ্গার কারিগর শাহাদাত হোসেন সেলিমকে রামগঞ্জে বিএনপি থেকে মনোনয়ন দেওয়ায় এখানকার বিএনপি নেতাকর্মীরা তাকে প্রত্যাখান করেছে। বিএনপি নেতা-কর্মীরা তাকে রামগঞ্জে আসতে দিচ্ছেনা। তাই তিনি উপায়-আন্তর না দেখে এখন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের উপর দোষ চাপাচ্ছেন। তার কর্মকাণ্ডে বিএনপি নেতাকর্মীরা আওয়ামী লীগের নৌকার দিকে ঝোঁকছে। এ সব দেখে শাহাতাদ হোসেন সেলিমের মাথা খারাপ হয়ে গেছে। রামগঞ্জে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নৌকা মার্কা নিয়ে বিপুল ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হবেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

এদিকে জনসভায় লক্ষ্মীপুর-১ রামগঞ্জ আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য প্রার্থী ড. আনোয়ার হোসেন খান বলেন, রামগঞ্জ থেকে আমি কিছু নিতে আসিনি, মানুষের সেবা করতে এসেছি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল এদেশের মানুষের মুখে হাসি ফুটানো। ক্ষুধা ও দারিদ্র মুক্ত দেশ গড়ার জন্যই দেশ স্বাধীন করেছিলেন তিনি। জাতির পিতার সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানুষ ও দেশের সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন।

আর বিএনপি রামগঞ্জে সন্ত্রাসী কার্যক্রম করেছে। আমাদের সন্তানদের স্কুলে আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে। আমি পুড়িয়ে দেয়া সেই ৪৫টি স্কুল নতুন করে তৈরী করে দিয়েছি। ছেলে-মেয়েদের উন্নতমানের লেখাপড়ার ব্যবস্থা করেছি। গত ৫ বছরে আমি রামগঞ্জে সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করে গেছি।

উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে নৌকাকে বিজয়ী করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আওয়ামীলীগ যখনই ক্ষমতায় এসেছে, তখনই দেশের উন্নয়ন হয়েছে। আওয়ামী লীগ আবার ক্ষমতায় এলে দেশের উন্নয়ন হবে, না হয় উন্নয়ন থেকে যাবে। তাই আগামী নির্বাচনে নৌকার বিজয়ের কোন বিকল্প নেই।

বুধবার বিকেলে রামগঞ্জ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ সভায় রামগঞ্জ পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র আবুল খায়ের পাটওয়ারীর সভাপতিত্বে এবং পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বেলাল আহম্মেদের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মনির হোসেন চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দেওয়ান বাচ্চু, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সুরাইয়া আক্তার শিউলী, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বেলায়েত হোসেন বেলাল, সাধারণ সম্পাদক মাহবুব ইমতিয়াজ, জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক হিজবুল বাহার রানা প্রমূখ।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত