প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চামেলীকে বিদেশে পাঠাতেও রাজি বিসিবি

বাংলা ট্রিবিউন : দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থতায় ভোগা বাংলাদেশ মহিলা দলের সাবেক ক্রিকেটার চামেলী খাতুনের দিকে অবশেষে দৃষ্টি দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বুধবার সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনে চামেলীকে বিদেশে পাঠানোর জন্য প্রস্তুত তারা।

অর্থের অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেন না চামেলী। চোটের কারণে ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যাওয়া এই ক্রিকেটারের ঠিকানা হয়েছে রাজশাহীর নগরীর দরগাপাড়া এলাকায় নিজের বাড়ির বিছানা। অর্থ কষ্টে চিকিৎসার অভাবে দিনের পর দিন চোখে জল ঝরানো চামেলীর জীবনযন্ত্রণা নিয়ে বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে ছাপা হওয়া খবরের পর থেকে সাকিব আল হাসান মোস্তাফিজুর রহমান ও রুবেলের সঙ্গে তার কোচ, জাতীয় মহিলা দলের খেলোয়াড়সহ দেশ-বিদেশের অনেকেই আর্থিক সহায়তার আশ্বাস ও সহানুভূতি জানিয়েছেন।

একটু দেরিতে হলেও বুধবার বোর্ডের পক্ষ থেকে চামেলীর ব্যাপারে ইতিবাচক ঘোষণা এসেছে। যদিও নিজামউদ্দিনের ইঙ্গিত অন্যরকম। বিসিবি চামেলীর চিকিৎসার উদ্যোগ আগেই নিয়েছে, কিন্তু তার পরিবার সহযোগিতা না করায় সেটা হয়নি। বিসিবির প্রধান নির্বাহী বলেছেন, ‘বোর্ড সভাপতির পক্ষ থেকে চামেলী খাতুনের চিকিৎসার সব ধরনের উদ্যোগ নেওয়ার বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সেই নির্দেশনা অনুসারে আমরা তার চিকিৎসার সব ধরনের দায়িত্ব নিচ্ছি। এজন্য আমরা তাকে ঢাকায় আনার উদ্যোগ নিয়েছি এবং তার চিকিৎসার প্রয়োজনে যদি তাকে বিদেশে নিতে হয়, বিসিবির এ বিষয়েও কোনও আপত্তি নেই।’

শুধু ঘোষণাতেই সীমাবদ্ধ থাকেনি বিসিবি। এরই মধ্যে দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা একজন চিকিৎসককে চামেলীর রাজশাহীর বাড়িতে পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছে। বিসিবির প্রধান নির্বাহীর বক্তব্য, ‘সব কিছুরই একটা সুনির্দিষ্ট প্রক্রিয়া থাকে। চামেলী খাতুনকে প্রথমে আমাদের চিকিৎসক দল পর্যবেক্ষণ করবে। এরপর তার অসুস্থতার ধরনের ওপর নির্ভর করবে তার চিকিৎসা। বোর্ড সভাপতির পক্ষ থেকে তার জন্য সর্বোচ্চ সুচিকিৎসার নির্দেশনা দেওয়া আছে।’

১৯৮৮ সালের ১১ নভেম্বর অস্বচ্ছল পরিবারে জন্ম নেওয়া চামেলী দিনকয়েক পরেই পা দেবেন ৩০ বছরে। সম্ভাবনাময়ী এই ক্রিকেটারের মাঠে ব্যাট-বলের সঙ্গে লড়াই করার কথা থাকলেও আট বছর আগে খেলতে গিয়ে ডান পায়ের লিগামেন্ট যায় ছিঁড়ে। সেই সঙ্গে মেরুদন্ডে দুই হাড়ের ফাঁকে থাকা নরম ডিস্কগুলো নষ্ট হয়ে যাওয়ায় অবশ হয়ে যাচ্ছে শরীরের ডান দিক। এই অবস্থায় দেশের বাইরে গিয়ে অস্ত্রোপচারের পরামর্শ দিয়েছেন তার চিকিৎসকরা, যাতে প্রয়োজন অন্তত ১০ লাখ টাকা। যেখানে নিজের সংসারের টানাপোড়েন, সেখানে চিকিৎসা ব্যয়ে এত টাকা খরচ করা তার জন্য দুঃস্বপ্নের মতো।

চামেলী জানিয়েছেন, ২০১১ সালে আবাহনী মাঠে অনুশীলনের সময় তার পায়ের লিগামেন্ট ছিঁড়ে যায়। এরপর স্বেচ্ছায় জাতীয় দল থেকে অবসর নেন। পরে দেখা দেয় মেরুদণ্ডের হাড়ের ব্যথা। এই অসুস্থ অবস্থায় দীর্ঘ আট বছর ধরে মাঠের বাইরে চামেলী।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ