প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের জন্য ১১ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক

সাইদ রিপন: ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের পরিবেশ টেকসই করতে ঋণ সহায়তা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক। এজন্য ১১ কোটি মার্কিন ডলার বা ৯১৩ কোটি টাকার ( প্রতি ডলার ৮৩ টাকা ধরে) একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। গতকাল রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে এ চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব কাজী শফিকুল আযম ও বিশ^ব্যাংকের ঢাকা অফিসের কান্ট্রি ডিরেক্টও চিমিয়াও ফান। এ সময় বক্তব্য রাখেন পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনের (পিকেএসএফ) এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল করিম।

ইআরডির সচিব কাজী শফিকুল আযম বলেন, চলতি অর্থবছর আশা করছি ১০ বিলিয়ন ডলারের প্রতিশ্রুতি পাওয়া যাবে। ইতিমধ্যেই গত বছরের তুলনায় ৭৬ শতাংশ বেশি অর্থছাড় হয়েছে। তিনি বলেন, রফতানির তুলনায় আমদানি অনেক বেড়েছে। এর পিছনে অনেক কারণ আছে। তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ১০টি মেগাপ্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে উদ্যোক্তাদের জলবায়ু পরিবর্তন জনিত অভিঘাত মোকাবেলা সক্ষম করে তোলা হবে।

চিমিয়াও ফান বলেন, জলবায়ুর পরিবর্তনে বাংলাদেশ ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। ফলে টেকসই উন্নয়ন প্রয়োজন। এজন্য এখন থেকেই ব্যবস্থা নিতে হবে। জলবায়ু পরিবর্তন জনিত ক্ষয় ক্ষতি মোকাবেলায় পিকেএসএফ বিশেষ ভূমিকা পালন করছেন। বিশেষ করে জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে খাপ খাওয়ানোর ক্ষেত্রে বিভিন্ন কাজ করছে। দেশের কুটির শিল্প জলবায়ু পরিবর্তন জনিত কারণে হুমকিতে আছে। সেক্ষেত্রে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের সক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে।

আব্দুল করিম বলেন, পিকেএসএফ এর সব প্রকল্পই সঠিক সময়ে এবং নির্দিষ্ট বরাদ্দের মধ্যেই বাস্তবায়িত হয়ে থাকে। ইফাদের অর্থায়নের একটি প্রকল্প সম্প্রতি ইউএস ট্রেজারি কর্তৃক পুরুস্কৃত হয়েছে। পিকেএসএফ স্বচ্ছতা ও জবাবদিহীতা নিশ্চিত করে। যে কোন ধরনের দূর্নীতিকে জিরো টলারেন্স করা হয়।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে জানানো হয়, প্রকল্পের বাস্তবায়ন ২০১৮ সালের জুন হতে ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত। প্রকল্পটির মোট ব্যয় ১ হাজার ৭৯ কোটি টাকা, তার মধ্যে বিশ^ব্যাংক আইডিএ ঋণ দেবে ৯১৩ কোটি টাকা (১১০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার)। বাকি ১৬৬ কোটি টাকা অর্থায়ন করবে পিকেএসএফ। বিশ^ব্যাংক আইডিএ উইন্ডো থেকে নমনীয় ঋণ হিসেবে এ অর্থ দেয়া হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ