প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বড় ইনিংসও নিরাপদ নয় টাইগারদের -
বিশাল ব্যবধানে জিতলো শ্রীলঙ্কা

এল আর বাদল : লঙ্কানদের ব্যাটিং ঝড়ে রানের চূড়ায় থাকা বাংলাদেশ দল ধপাস করে নিচে পড়ে গেলো। লঙ্কানরা এও প্রমাণ করলো, তাদের বিরুদ্ধে ১৯৩ রানের বিশাল ইনিংস মোটেও নিরাপদ নয়।

বিশাল রানের পেছনে ছুটতে গিয়ে কোন মানসিক চাপ নয়, সহজেই জেতা যায় এই ম্যাচ। হাথুরুবাহিনী সেই শিক্ষাটাও দিলো টাইগার সেনাদের। টি-২০ ক্রিকেটে বাংলাদেশের এটাই সর্বাধিক রান। এর আগে ২০১২ সালে আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে সে দেশের মাটিতে ১৯০ রানের বিশাল ইনিংস খেলেছিলো লাল-সবুজের দল। জবাবে ৮ উইকেটে ১১৯ রান করে আয়ারল্যান্ড। বাংলাদেশ ম্যাচ জিতে ৭১ রানে।

ছয় বছর পর আবার রানের চূড়ায় উঠলো বাংলাদেশ। তবে ম্যাচটি জেতা হলো না। আজ হোম গ্রাউন্ডে ২৫ হাজার দর্শকের সামনে মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ (৪৩), মুশফিকুর রহিম (৬৬*) ও সৌম্য সরকার (৫১) বেপরোয়া ব্যাটিং করে লঙ্কান বোলারদের নাভিশ্বাস তুলে দেন। ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৯৩ রানের নান্দনিক ইনিংস খেলে রিয়াদবাহিনী। জয়ের বিশাল লক্ষ্য নিয়ে শ্রীলঙ্কা এতোটাই ব্যাটিং তা-ব চালালো, যে টাইগার বোলারদের খুঁজেই পাওয়া যায়নি।

পেস আক্রমণে আসা মুস্তাফিজ, রুবেল ও সাইফউদ্দিনকে বেধড়ক পেটান। এ অবস্থা থেকে রেহাই পাননি স্পিনার নাজমুল, আফিফ ও অধিনায়ক রিয়াদ নিজেও। লঙ্কান ব্যাটসম্যানদের একের পর এক বাউন্ডারী আর ওভার বাউন্ডারী মারের দৃশ্যই কেবল দেখলো গ্যালারির দর্শকরা। দুই দলের মারমুখি ব্যাটিং দেখে দর্শকদের টিকিটের পয়সা উসুল হলেও পরাজয়কে সঙ্গী করে মাঠ ছাড়ে ক্রিকেট প্রেমীরা।

কুশল মেন্ডিস ৫৩, গুণাথিলাকা ৩০, দাসুন শানাকা ৪২* থিসারা পেরেরা ৩৯* রান করায় শ্রীলঙ্কাকে জয় পেতে মোটেও বেগ পেতে হয়নি। তারা ২০ বল হাতে রেখে বাংলাদেশকে ৬ উইকেটে হারিয়ে সিরিজে ১-০তে এগিয়ে থাকলো। বল হাতে অভিসিক্ত নাজমুল ২টি ও আফিফ ১টি এবং পেসার রুবেল একটি উইকেট শিকার করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত