প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মুমিনুলের শতক (সরাসরি)

রবিন আকরাম: চট্রগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে স্টেটে ভালোভাবেই এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। তামিমের বিদায়ের পর ইমরুলকে সঙ্গ দিচ্ছিলেন মুমিনুল। তবে লাঞ্চের আগে এলবিডব্লিউ হয়ে ইমরুল সাজঘরে ফিরে গেলে দলের হাল ধরেন টাইগারদের টেস্ট স্পেশালিস্ট এই ব্যাটসম্যান। তুলে নিয়েছেন পঞ্চম সেঞ্চুরি। ৯৯ বলে ১৩ চারে ১০৩ রানে অপরাজিত আছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেটে ২৪৭ রান। মুমিনুল ১০৩ আর মুশফিক ৪৬ রান নিয়ে ব্যাট করছেন।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই দেখে শুনে ব্যাট করতে থাকেন দুই ওপেনার তামিম ও ইমরুল। ইমরুল একটু ধীর গতিতে খেললেও তামিম শুরু থেকেই ছিলেন আগ্রাসী। লাহিরু কুমারাকে তিন বলে টানা তিন চারে মারেন এই ওপেনার।

একটু পর অফ স্পিনার দিলরুয়ান পেরেরাকে লং অন দিয়ে উড়িয়ে বল সিমানা ছাড়া করেন। হেরাথের বলে এক রান নিয়ে ক্যারিয়ারের ২৫তম হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেন এই ওপেনার। পরের ওভারেই সাজঘরে ফিরে যান এই ওপেনার। এরপর মুমিনুলকে সঙ্গে নিয়ে ৪৮ রানের জুটি গড়েন ইমরুল। তবে ৪০ রান করে সান্দাকানের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফিরে যান এই ওপেনার।

এদিকে এই স্টেটে প্রথম বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে ১ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করলেন মুশফিকুর রহিম। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম স্টেটের দ্বিতীয় সেশনে এই রেকর্ড গড়েন তিনি। তার সাথে ব্যাট করা মুমিনুল হকও ব্যাক্তিগত ১৩তম টেস্ট ফিফটি পূরণ করেছেন। ৫৯ বল খেলে তিনি এই ফিফটি করেন।

এর আগে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সাবেক এই অধিনায়কের রান ছিলো ১৩ ম্যাচের ২৩ ইনিংসে ৯৯৮। ৪৫.৩৬ রানের গড় নিয়ে করেছেন ৬ টি হাফ-সেঞ্চুরি এবং একটি সেঞ্চুরি। সর্বশেষ ২০১৭ সালে অস্ট্রেলিয়া সিরিজে এক ম্যাচের দুই ইনিংসে করেন যথাক্রমে ৬৪ এবং ৩১ রান। আজ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এই মাইলফলক ছোঁয়ার পর তার রান ১৪ ম্যাচে ১ হাজার ছাড়িয়েছে।

এই ভেন্যুতে ২০১০ সালে একমাত্র সেঞ্চুরিটি করেছিলেন মুশফিকুর রহিম। ভারতের বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে ১১৪ বলে ১৭টি চার ও ১টি ছক্কায় ১০১ রান করেন তিনি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান তামিম ইকবালের এই ভেন্যুতে। তিনি ১৩ ম্যাচের ২৫ ইনিংসে ৮০৩ রান করেছেন। ১৪ ম্যাচের ২৫ ইনিংসে ৭০৭ রান নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছেন সাকিব আল হাসান।

বাংলাদেশ দল: তামিম ইকবাল, লিটন দাস, ইমরুল কায়েস, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান, সানজামুল ইসলাম।

শ্রীলঙ্কা দল: দিমুথ করুনারত্নে, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা, কুসল মেন্ডিস, দিনেশ চান্দিমাল, রোশেন সিলভা, নিরোশান ডিকভেলা, দিলরুয়ান পেরেরা, রঙ্গনা হেরাথ, সুরঙ্গা লাকমল, লাকশান সান্দাকান, লাহিরু কুমারা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত