প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সেমিতে ওঠার লড়াইয়ে কাল মাঠে নামবে বাংলাদেশ-ভারত

আক্তারুজ্জামান: দেশের মাটিতে চলছে বড়দের ধারাবাহিক জয়োৎসব। অপরদিকে বিদেশের মাটিতেও আলো ছড়াচ্ছে ছোটরা। নিউজিল্যান্ডে চলমান অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বে ইংল্যান্ডের কাছে হারলেও নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে কানাডা ও নামিবিয়াকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছিল সাইফ-আফিফরা। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটায় ভারতের বিরুদ্ধে কুইন্সটাউনে সেমিফাইনালের লক্ষ্যে মাঠে নামবে জুনিয়র টাইগাররা।

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে সেমিফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে খুব কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে বাংলাদেশকে। কারণ সেমিতে ওঠার জন্য এবারের বিশ্বকাপের অন্যতম ফেভারিট দল ও ২০১৬ বিশ্বকাপের রানার্সআপ টিম ইন্ডিয়াকে হারাতে হবে সাইফ হাসানের দলকে। যে ভারত ‘বি’ গ্রুপ থেকে অস্ট্রেলিয়া, জিম্বাবুয়ে ও পিএনজিকে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই কোয়ার্টারে উঠেছে।

এ টুর্নামেন্টে দু’দলই আছে দারুণ ফর্মে। তিনটি ম্যাচ খেলতে নেমে তিনটিতেই বিশাল ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে পৃথ্বি শা এর দল। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১০০ রানের, জিম্বাবুয়ে ও পিএনজির বিপক্ষে ১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে জয় পায় ভারত।

দলের সঙ্গে সঙ্গে ফর্মের তুঙ্গে আছে ছোট ভারতীয়রাও। বিশেষ করে দুই ওপেনার পৃথ্বি শা ও শুভমান গিল। দুজনই দু’ম্যাচে ব্যাট হাতে নেমে করেছেন দুটি করে অর্ধশতক। এছাড়া মানজোত আছে দারুণ ফর্মে। দুই ইনিংস ব্যাট হাতে নেমে তারও সংগ্রহ ৮৬ ও ৮*। বোলারদের মধ্যে শিভম মাভি ৩ ম্যাচে ৬টি ও অনুকুল রায় ৩ ম্যাচে নিয়েছেন ১০টি উইকেট। প্রতিটা ম্যাচেই তাদের ছিল দুর্দান্ত প্রতাপ।

জুনিয়র টাইগাররাও কম যায়নি। শুধু ইংল্যান্ডের সাথে ছাড়া বাকি ম্যাচগুলোতে তাদের আধিপত্য বজায় ছিল। তবে নামিবিয়া ও কানাডা অপেক্ষাকৃত দুর্বল শক্তির দল হওয়ায় কপালে একটু ভাজ ফেলতেই হচ্ছে। কেননা, সহজ দুটি জয়ের পর ইংল্যান্ডের কাছে এসে একেবারে আত্মসমর্পণ করে ম্যাচ হারে সাইফরা।

গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের তিনটি ম্যাচে সবচেয়ে বেশি আলো ছড়িয়েছেন আফিফ হোসাইন। কানাডার বিপক্ষে ব্যাট হাতে ৫০ রানের পাশাপাশি বল হাতে ৫ টি উইকেট নেন এ তরুণ তুর্কি। আবার ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে খেলেন ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৬৩ রানের ইনিংস। কানাডার বিরুদ্ধে শতকের দেখা পেয়েছেন তৌহিদ হৃদয়। বল হাতে হাসান মাহমুদ ৫টি ও কাজী অনিক ৪টি উইকেটের দেখা পেয়েছেন।

আগামীকাল (শুক্রবার) কোয়ার্টার ফাইনালে বাংলাদেশ-ভারত হাইভোল্টেজ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে কুইন্সটাউনে। ম্যাচটি শুরু বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ৩টায়।

উল্লেখ্য যে, ২০১৬ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হয়েছিল যুব বিশ্বকাপ। গত আসরের চ্যাম্পিয়ন ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং রানার্সআপ হয়েছিল ভারত। সেমিতে ক্যারিবীয়দের কাছে বিদায় নিয়ে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে তৃতীয় হয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছিল জুনিয়রদের।

কুইন্সটাউনের মাঠে শুক্রবার ভোরে ভারতকে হারাতে পারলেই টানা দ্বিতীয়বার সেমিতে ওঠার গৌরব অর্জন করবে লাল-সবুজের জার্সিধারীরা। তখনই বোঝা যাবে বড় ও ছোট টাইগাররা একই ¯্রােতেই প্রবাহিত হচ্ছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত