শিরোনাম
◈ ১৫৭ বিদেশি বন্দিকে নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে হাইকোর্টের নির্দেশ ◈ শুক্রবার কমছে সয়াবিন তেলের দাম ◈ ইসরায়েলি হত্যাযজ্ঞে চুপ থেকে বিএনপি-জামায়াত গাজায় গণহত্যার পক্ষে অবস্থান নিয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ বঙ্গবন্ধু জাতিসংঘেরও ১৫ বছর আগে শিশু আইন প্রণয়ন করেন: আইনমন্ত্রী  ◈ বিপিএলের ফাইনাল ম্যাচের সময় চূড়ান্ত করলো বিসিবি ◈ সাবেক স্বামীর দেওয়া আগুনে দগ্ধ চিকিৎসক লতা মারা গেছেন ◈ সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে ঔষধ-পত্র ও চিকিৎসা সামগ্রী প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ◈ বিদ্যুতের দাম বাড়ছে ৮.৫০ শতাংশ, ফেব্রুয়ারিতেই কার্যকর ◈ ২ দিনের রিমান্ড শেষে ভিকারুননিসার শিক্ষক মুরাদ কারাগারে ◈ বর্তমানে মত প্রকাশের স্বাধীনতার ছিটেফোটাও নেই: রিজভী

প্রকাশিত : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ০৪:৪৮ দুপুর
আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ০৪:৪৮ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদন

ভারত যুব বিশ্বকাপ হারতেই খুশির উৎসব বাংলাদেশ ও পাকিস্তানে

স্পোর্টস ডেস্ক: গত রোববার শেষ হয়েছে আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ। কয়েক মাস আগে ঘটে যাওয়া সিনিয়রদের পরাজয়ের ধারা অব্যাহত রেখে অস্ট্রেলিয়ার কাছে পরাজিত হয়েছে টিম জুনিয়র ইন্ডিয়াও। আর, তারপরই যত না অস্ট্রেলিয়ার সমর্থকরা উচ্ছ্বাস দেখিয়েছেন, তার চেয়ে বেশি উচ্ছ্বাস দেখা গেলো কাঁটাতারের ওপারে পাকিস্তান এবং বাংলাদেশে।

অস্ট্রেলিয়ার জয়ের চেয়েও ভারতের হারেই যেন বেশি খুশি হয়ে উঠেছিলেন সীমান্তপারের নেটিজেনরা। অবশ্য ভারতের গোলায় তাদের রীতিমতো কুপোকাতই হতে হতো। আর, ভারতের হয়ে এই গোলাগুলি যিনি চালালেন তিনি আর কেউ নন, স্বয়ং সাবেক ক্রিকেটার ইরফান পাঠান। - ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

অনূর্ধ্ব-১৯ আইসিসি জুনিয়র বিশ্বকাপে ভারত গতবারের চ্যাম্পিয়ন। গত রোববার সেই ভারতকেই দক্ষিণ আফ্রিকার উইলোমুর পার্কে ৭৯ রানে হারাল জুনিয়র অস্ট্রেলিয়া। এবছর জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে উঠেছিল পাকিস্তানও। কিন্তু, তাদের হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। আর, উদয় সাহারানের নেতৃত্বাধীন ভারত হারিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকাকে।

এবারও ভারতও ফাইনালে হারায় তাই বেশ মজাই পেয়েছিল পাকিস্তান-বাংলাদেশি ক্রিকেটপ্রেমীদের একাংশ। জবাবে ইরফান তার এক্সবার্তায় লিখেছেন, তাদের অনূর্ধ্ব ১৯ টিম ফাইনালে উঠতে না-পারলেও, সীমান্তের ওপারের কীবোর্ড যোদ্ধারা আমাদের তরুণদের পরাজয়ে আনন্দ পায়। এই নেতিবাচক মনোভাব তাদের খারাপ মানসিকতাই তুলে ধরেছে। 

এই আগে গত বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের হারে কার্যত উৎসবের মেজাজে সেলিব্রেট করা হয়েছিল ঢাকায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চত্ত্বরে উদযাপন পর্ব হয়েছিল নজরকাড়া। আর তাই পাকিস্তান এবং বাংলাদেশকে ধুয়ে দিতে দুইবার ভাবলেন না ইরফান পাঠান।

পাঠানের এই সোজাসাপটা কথাবার্তা অবশ্য নতুন কিছু না। এর আগে তিনি সোশ্যাল সাইটে দেশের দলের হয়ে বারবার সোচ্চার হয়েছেন। তার জন্য পাকিস্তানের নেটিজেনদের কুনজরেও তাকে বারবার পড়তে হয়েছে। এশিয়া কাপের ফাইনালের পরে তার ভাইরাল এক্সবার্তার জন্য পাঠানকে তো রীতিমতো তলবও করা হয়েছিল। সম্পাদনা: এল আর বাদল

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়