শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৪ নভেম্বর, ২০২২, ১২:২২ রাত
আপডেট : ২৪ নভেম্বর, ২০২২, ১১:১৩ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

কোস্টারিকাকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে স্পেনের রেকর্ড গড়া জয়

ছবি: সংগৃহীত

স্পোর্টস ডেস্ক: তোরেসের জোড়া গোলে কোস্টারিকাকে ৭-০ গোলে তুলোধুনো করে ছাড়লো স্পেন। বিশ্বকাপের ইতিহাসে স্পেনের এটি সবচেয়ে বড় জয়। 

২০০৮ থেকে ২০১২; স্পেনের টিকিটাকাময় সময়টা ঠিক জাদুকরীই না ছিল। ২০০৮ তারা সালে ইউরো জিতলো। তার দুই বছর পর ২০১০ বিশ্বকাপে প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন হলো। তার দুই বছর পর ২০১২ সালে আবার ইউরো জিতলো। এরপর অবশ্য সমটা ভালো যায়নি তাদের। 

কিন্তু লুইস এনরিকের ছোঁয়ায় যেন বদলে যেতে শুরু করে স্প্যানিশরা।

২০২২ বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে এসে যেন সেটার প্রতিচ্ছবি দেখতে পেল বিশ্ব। কোস্টারিকাকে ৭-০ গোলের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে ধরাশায়ী করলো লা রোহারা।

স্পেনের হয়ে জোড়া গোল করেন ফেরান তোরেস। এছাড়াও ১টি করে গোল করেন, অ্যাসেনসিও, দানি ওলমো, মোরাতা, কার্লস সোলার ও পাবলো গাভি।

প্রথম গোলের সূচনা ১১ মিনিটের মাথায় দানি ওলমোর পা থেকে। ডি বক্সের বাইরে থেকে আলতো করে তুলে দেন গাবি। ডি বক্সের বাইরে থেকে আলতো করে তুলে দেন গাবি। দারুণ দক্ষতায় বল নিজের দখলে নেন ওলমো। একটু সামনে গিয়ে আলতো শটে কোস্টারিকার গোলরক্ষককে ফাঁকি দেন ওলমো। 

ওলমোর পর অ্যাসেনসিওর গোল। ২১ মিনিটে ২-০ গোলে এগিয়ে স্পেন। প্রথম গোলের ১০ মিনিট পরেই আবার স্পেনের লিড। আলবার বাম দিক থেকে নেওয়া ক্রস থেকে নাভাসকে ফাঁকি দিয়ে বল জালে জড়ান অ্যাসেনসিও। 

৩০ মিনিটে কোস্টারিকার জালে স্পেনের তিন গোল। তৃতীয় গোলটি আসে পেনাল্টি থেকে। ডি বক্সে ২৯ মিনিটে দুয়ার্তে ফাউল করেন আলবাকে। পেনাল্টি পায় স্পেন। টরেস বাঁ দিকে নিচু শটে ফাঁকি দেন নাভাসকে। কোটারিকার তারকা গোলরক্ষক ডান দিকে ঝাঁপ দেন।  ৩-০ গোলে এগিয়ে যায় স্পেন।

শেষবার ১৯৩৪ সালের বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচের প্রথমার্ধে ৩-০ গোলের লিড নিয়েছিল স্পেন।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই যেন আরো গোলের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে স্পেন। পাস, পাস ও পাস এই নীতিতে খেলে কোস্টারিকার মানসিকতাকেই ভেঙে দেয় তারা।

ম্যাচের ৫৪ মিনিতে আবারো দলের হয়ে গোল করেন ফেরান তোরেন। জাতীয় দলের হয়ে এটি তার ১৫তম গোল। ৪ গোল দিয়েও যেন গোলের ক্ষুধা মেটে না স্পেনের। মোরাতার মত স্ট্রাইকারকে বদলি হিসেবে নামায় তারা।

তারই দেয়া পাস থেকে ৭৪ মিনিটে গোল করে দলকে ৫ গোলের লিড এনে দেন মিডফিল্ডার গাভি। এই গোলের সুবাধে এক ইতিহাস গড়েন এই বার্সা ফুটবলার।

স্পেনের সবচেয়ে কমবয়সী ফুটবলার হিসেবে বিশ্বকাপে গোল করলেন তিনি। ম্যাচের একদম অন্তিম মুহূর্তে ৮৯ মিনিটে স্পেনের হয়ে ষষ্ঠ গোল করেন পিএসজির ফুটবলার কার্লস সোলার।

ম্যাচের ৯২ মিনিটে সর্বশেষ গোলটি করে স্পেন। এবার দাই ওলমোর পাস থেকে বদলি হিসেবে নামা মোরাতা গোল করে দলকে ৭-০ গোলের বিশাল জয় এনে দেন।

বিশ্বকাপে ইতিহাসে এই প্রথম কোনো ম্যাচে ৭ গোল করলো স্পেন। এই বিশাল জয়ে গ্রুপের শীর্ষে উঠে আসলো লুইস এনরিকের দল।

এমএএস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়