শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৫ ডিসেম্বর, ২০২৩, ০২:১৮ রাত
আপডেট : ০৫ ডিসেম্বর, ২০২৩, ০২:১৮ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

বাংলা নাউনের জেনেটিভ কেইস কীভাবে লিখবেন?

মাসুদ রানা

মাসুদ রানা: ইংলিশ নাউনের জেনেটিভ/পজেসিভ কেইসের এ্যাপোস্ট্রোফি এস (‘ং) অনুকরণ করে অনেক বাংলাভাষী বাংলায় বিশেষ্য পদের অধিকার বুঝাতে এ্যাপস্ট্রোফি র (‘র) ব্যবহার করে থাকেন, যা মৌলিকভাবে ভুল। লক্ষ্য করলাম, এক লেখক তার একটি ফেইসবুক পৌস্টে লিখেছেন, “প্রয়াস’র প্রকাশনার প্রতি সবাই চোখ রাখুন”, যা বাংলা ব্যাকরণ-সম্মত নয় এবং ব্যবহার-সম্মতও নয়। বিশেষ্য পদের অধিকার বুঝাতে যে ‘র’/‘এর’ বিভক্তি যুক্ত করতে হয়, তার একটি ব্যবহারিক নিয়ম আছে, যার ব্যতয় হলে উচ্চারণে বিপত্তি ঘটতে বাধ্য। ব্যঞ্জনধ্বনি দিয়ে যে-বিশেষ্য শেষ হয়, তার অন্তে ‘র’ যুক্ত হতে পারে না। ‘র’ বিভক্তি যুক্ত হতে পারে একমাত্র স্বরধ্বনি দিয়ে শেষ হওয়া বিশেষ্যের সাথে। 

নীচের উদাহরণ লক্ষ করুন : ‘বাবার বেটা’ বনাম ‘বাপের বেটা’ ‘বাবা’ বিশেষ্যের অধিকার বুঝাতে ‘র’ যুক্ত করে ‘বাবার’ লিখা হয়, কারণ ‘বাবা’ বিশেষ্যটির অন্ত ধ্বনি হচ্ছ স্বরধ্বনি ‘আ’। কিন্তু ‘বাপ’ বিশেষ্যের অন্তধ্বনিটি ব্যঞ্জনধ্বনি হওয়ার কারণে সেখানে ‘এর’ বিভক্তি যুক্ত হবে, ‘র’-বিভক্তি নয়। সুতরাং “প্রয়াস’র” লিখা ভুল। এখানে লুপ্তি চিহ্ন ব্যবহারের কোনো সুযোগ নেই। কারণ, প্রমিত বাংলায় ‘বাপর’ নয়, ‘বাপের’ বলা হয়। লেখকের উচিত ছিলো ‘প্রয়াসের’ লিখা। ০৩/১২/২০২৩ লণ্ডন, ইংল্যাণ্ড। 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়