শিরোনাম
◈ সাংবাদিকরা চাষাবাদ করছেন কি না, দেখার দায়িত্ব পেলেন শাইখ সিরাজ ◈ মালদ্বীপে আবার জাহাজ পাঠাল চীন  ◈ কারামুক্ত বিএনপি নেতা আলালের স্বাস্থ্যের খোঁজ নিলেন মঈন খান ◈ গাজায় যুদ্ধ নয়, গণহত্যা চলছে: প্রধানমন্ত্রী ◈ শুক্রবার বিশ্বে বাতাস দূষণের তালিকায় ঢাকা ছিল সপ্তম ◈ মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে নির্বাচন  নিয়ে কেউ প্রশ্ন করেনি: প্রধানমন্ত্রী ◈ লোহিত সাগরে হামলায় ব্যবহার করা হবে সাবমেরিন অস্ত্র: হুথি নেতা  ◈ ২১ বলে সেঞ্চুরি করে বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন আসজাদ ◈ যারা সরকার উৎখাত করতে চায়, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি তাদেরই কারসাজি: প্রধানমন্ত্রী ◈ খতনা করাতে গিয়ে শিশুর মৃত্যু: ৩ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বিএমডিসিকে নির্দেশ

প্রকাশিত : ০৫ অক্টোবর, ২০২২, ০৩:৪৩ দুপুর
আপডেট : ০৫ অক্টোবর, ২০২২, ০৩:৪৪ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

পুলিশকে ট্রলারডুবির খবর দেয়.

৯৯৯-এ কল করে রোহিঙ্গা কিশোরের ফোন

জিয়াবুল হক, টেকনাফ : কক্সবাজার টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের হলবনিয়া পাড়া এলাকায় ট্রলারডুবির ঘটনায় শিশুসহ চার জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে ৪৯ জনকে। তাদের মধ্যে একজন আবু আনসার (১৫)। ট্রলারডুবির আগ মুহূর্তে জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ কল করে পুলিশে খবর দেয় এই রোহিঙ্গা কিশোর।

তারপর দ্রুত এসে উদ্ধার কাজ শুরু করেন কোস্ট গার্ডের সদস্যরা। আবু আনসারের ভাষ্যমতে, সোমবার )৩ অক্টোবর) গভীর রাতে মালয়েশিয়ায় পাঠানোর জন্য টেকনাফের বাহারছড়ার ইউনিয়নের নোয়াখালীপাড়া থেকে ৬০-৭০ জনকে ছোট ছোট ট্রলারে তোলে।

এরপর সেখান থেকে নিয়ে এসে বড় একটি ট্রলারে তোলে দালালরা। কিছু দূর যাত্রার পর ট্রলারের তলা ফেটে পানি ঢুকতে শুরু করে। এ সময় কয়েকজন পানিতে ঝাঁপ দিয়ে সাঁতরে তীরে ওঠেন।

তারপর সবাই হৈ চৈ শুরু করেন। এই অবস্থায় ৪ অক্টোবর মঙ্গলবার ভোর ৪টার পরে ৯৯৯-এ নম্বরে কল করে বাঁচার আকুতি জানায় আবু আনসার। ফোনের ওপাশ থেকে ‘কী সমস্যায় পড়েছে’ জানতে চাওয়া হয়। জবাবে এই কিশোর বলেন, সাগরে ট্রলার ডুবে যাচ্ছে আমাদের বাচাঁন।

লোকেশন জানতে চাওয়া হলে অন্ধকারের কারণে বলা সম্ভব হয়নি। এরপরই ট্রলারটি ডুবে যায়। জীবিত উদ্ধার চার বাংলাদেশিসহ ৪৯ জনকে পুলিশে হস্তান্তর করেছে কোস্ট গার্ড। আবু আনসার জানায়, সেখান থেকে খবর পেয়ে টেকনাফ-বাহারছড়া কোস্টগার্ড সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছান।

কোস্ট গার্ডের অনুসন্ধানী দল খুঁজে পাওয়ার আগে ট্রলারটি ডুবে যায়। পরে তারা ভাসমান অবস্থায় ৪৯ জনকে জীবত উদ্ধার করেন। এব্যাপারে কোস্ট গার্ডের টেকনাফ স্টেশন অফিসার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আশিক আহমেদ জানান, সাগরপথে অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাচ্ছিল রোহিঙ্গাবাহী ট্রলার।

ট্রলারের তলা ফেটে পানি ঢুকতে শুরু করলে কিশোর আবু আনসার ৯৯৯-এ কল করে সাহায্য চেয়েছিল। এরপর আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কাজ চালায়।

এতে চার বাংলাদেশি ও ৪৫ রোহিঙ্গাকে জীবিত উদ্ধার করা গেছে। তাদের থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ট্রলারডুবির ঘটনায় মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত রোহিঙ্গাসহ ৪৯ জনকে জীবিত এবং তিন নারী ও এক শিশুকে মৃত উদ্ধার করেছেন কোস্ট গার্ডের সদস্যরা।

জীবিতদের মধ্যে আট জন রোহিঙ্গা নারী, ৩৭ জন পুরুষ ও চার জন বাংলাদেশি।

নিহতরা হলেন- উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্প-৪ এর তৈয়বা খাতুন (১৮), কিসমত আরা (১৭) ও ক্যাম্প-১৮ এর উম্মে সালমা (১৮)। রাতে মৃত উদ্ধার শিশুর পরিচয় জানা যায়নি।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়