শিরোনাম
◈  সরকার থেকে বরাদ্দ করলে সংসদ সদস্যদের গাড়ি আমদানির প্রয়োজন নেই: সংসদে আলোচনা ◈ ঈদে যানজট এড়াতে ডিএমপির ২২ নির্দেশনা ◈ ব্রিকসকে দেওয়ার মতো অনেক কিছু রয়েছে বাংলাদেশের: ডা. দীপু মনি ◈ পল্টনে ফাইন্যান্স টাওয়ারের আগুন নিয়ন্ত্রণে ◈ নেপিয়ার ঘাস খেয়ে মারা গেলো খামারের ২৬ গরু ◈ এমপি আনার হত্যা তদন্তে কোনো চাপ নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ তারেক রহমানসহ পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী ◈ সাধারণ নাগরিকের মতো করেই ড. ইউনূসের বিচার হচ্ছে: আইনমন্ত্রী ◈ ড. ইউনূসের কথা অসত্য, জনগণের জন্য অপমানজনক: আইনমন্ত্রী ◈ সরকারের ব্যাংকঋণে বেসরকারিখাতে বিনিয়োগ ব্যাহত হবে: সিপিডি

প্রকাশিত : ১৮ মে, ২০২৪, ০৩:৪৩ দুপুর
আপডেট : ১৮ মে, ২০২৪, ০৬:১৬ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

দেশের জিডিপির পূর্বাভাস কমালো জাতিসংঘ, চিন্তা মূল্যস্ফীতি নিয়ে

বিশ্বজিৎ দত্ত: [২] বছরের মধ্যবর্তী সময়ের ‘দ্য ওয়ার্ল্ড ইকনমিক সিচুয়েশন অ্যান্ড প্রসপেক্টস’ শীর্ষক রিপোর্ট প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। সেখানে বলা হয়েছে, ‘‘২০২৪ সালে বাংলাদেশের বৃদ্ধির পূর্বাভাস কমিয়ে ৫.৬% করা হল।

[৩] আর্থিক কর্মকাণ্ডের গতি হ্রাসের কারণ হিসেবে দেখিয়ে চলতি অর্থবর্ষে দেশের জিডিপি বৃদ্ধির পূর্বাভাস কমিয়েছে অনেক সংস্থা। এ বার বৃদ্ধির পূর্বাভাস কমালো জাতীসংঘ।

[৪] অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তা বিশেষ করে বিশ্ব অর্থনীতির বাণিজ্য এবং তেলের দাম ঘিরে যে অনিশ্চয়তা তৈরি হচ্ছে তাতে বাংলাদেশের রপ্তানিখাত ভুগবে। একই সঙ্গে আভন্ত্যরীণ উৎপাদন হ্রাস ও মূল্যস্ফীতির কারণে আর্থিক বৃদ্ধি কমে যাবে। 

[৫] ২০২২ সালে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি ছিল ৭.১ শতাংশ। ২৩এ এটি কমে ৬.০ হয়। ২০২৪ সালে কমে ৫.৬ শতাংশ হয়। ২০২৫ সালেও এর খুব একটা পরিবর্তন হবে না। 

[৬] এই সময়ে দেশের মূল্যস্ফীতি কিছুটা কমলেও তা দক্ষিণ এশিয়ায় দ্বিতীয় মূল্যস্ফীতি হয়েই থাকেবে। ২০২২ সালে দেশের মূল্যস্ফীতি ছিল ৭.৭ শতাংশ। ২০২৩ সালে এটি বৃদ্ধি পেয়ে হয় ৯.৬। ২০২৪ সালে এটি ৮.৫ হবে। ২০২৫ সালে হবে ৬.৮ শতাংশ। 

[৭] দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে বেশি প্রবৃদ্ধি হবে ভারতের একই সময়ে মূল্যস্ফীতিও থাকবে সবার নীচে। ভারতের প্রবৃদ্ধি ২০২৪ সালে হবে৬.৮ শতাংশ। আর মূল্যস্ফীতি থাকবে ৪.৫ শতাংশ। 

[৮] এই সময়ে পাকিস্তানের প্রবৃদ্ধি গবে ২.১ শতাংশ। আর মূল্যস্ফীতি থাকবে ২৩ শতাংশ। নেপালের প্রবৃদ্ধি হবে ৪.১ শতাংশ আর মূল্যস্ফীতি হবে ৬.২ শতাংশ। 
 
[৯] জাতিসংঘের রিপোর্টে বলা হয়, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এখনও চাহিদার উন্নতি না হওয়ায় পণ্য রফতানি ঘিরে দুশ্চিন্তা দূর হচ্ছে না। বিশ্ব বাজারে তেলের দাম বৃদ্ধির জেরে ভুগতে পারে সমগ্র দক্ষিণ এশিয়ার অর্থনীতি। বাংলাদেশ যার বাইরে নয়। 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়