শিরোনাম
◈ ব্রিকসকে দেওয়ার মতো অনেক কিছু রয়েছে বাংলাদেশের: ডা. দীপু মনি ◈ পল্টনে ফাইন্যান্স টাওয়ারের আগুন নিয়ন্ত্রণে ◈ ঢাকায় ৮ মাত্রার ভূমিকম্পের শঙ্কা রয়েছে: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ◈ এমপি আনার হত্যা তদন্তে কোনো চাপ নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ তারেক রহমানসহ পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী ◈ সাধারণ নাগরিকের মতো করেই ড. ইউনূসের বিচার হচ্ছে: আইনমন্ত্রী ◈ শিগগিরই আমাদের আন্দোলন আরও বেগবান হবে: মির্জা ফখরুল ◈ ড. ইউনূসের কথা অসত্য, জনগণের জন্য অপমানজনক: আইনমন্ত্রী ◈ সরকারের ব্যাংকঋণে বেসরকারিখাতে বিনিয়োগ ব্যাহত হবে: সিপিডি ◈ বাবার হত্যার সঠিক বিচার চেয়েছেন নিহত আজিম আনারের কন্যা 

প্রকাশিত : ১৬ এপ্রিল, ২০২৪, ০৯:৩২ রাত
আপডেট : ১৬ এপ্রিল, ২০২৪, ০৯:৩২ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

পরোক্ষ ধূমপানে ফুসফুসের ক্যান্সারের যোগসূত্র দেখা গেছে: জাপানি গবেষণা

খুররম জামান: [২] পরোক্ষ ধূমপানে ফুসফুসের ক্যান্সারে জাপানে প্রতি বছর প্রায় ৭৬ হাজার মানুষ মারা যায়, আর বিশ্বে ১৮ লাখ।

[৩] জাপানের ন্যাশনাল ক্যান্সার সেন্টারের এক গবেষণায় দেখা গেছে, সেকেন্ডহ্যান্ড ধূমপান সক্রিয় ধূমপায়ীদের চেয়ে জিনের ক্যান্সারজনিত মিউটেশনকে প্ররোচিত করে। এটি পরোক্ষ ধূমপায়ীদের মধ্যে ফুসফুসের ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়। 

[৪] গবেষকরা বলছেন, গবেষণায় দেখানো হয়েছে যে কীভাবে পরোক্ষ ধূমপানে জেনেটিক মিউটেশন ঘটায়, সেকেন্ডহ্যান্ড ধূমপানের ক্ষতিকারক প্রভাবের আরও প্রমাণ প্রদান করেন তারা। তারা আন্তর্জাতিক মানের সঙ্গে  সামঞ্জস্য রেখে ঘরের ভিতরে ধূমপান নিষিদ্ধ করার জন্য কঠোর আইনের আহ্বান জানায়।

[৫] বর্তমানে, জাপানে রেস্তোরাঁ এবং বারগুলোতে নির্দিষ্ট শর্তে ধূমপানের অনুমতি দেওয়া হয়েছে, যা পরোক্ষ ধূমপানের উৎস। ফেব্রুয়ারি মাসে জার্নাল অফ থোরাসিক অনকোলজিতে প্রকাশিত গবেষণায়, গবেষকরা প্রায় ৩শ মহিলা অধূমপায়ীর ডিএনএ ক্রম বিশ্লেষণ করেছেন। তারা সকলেই ২০১১ থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে টোকিওর ন্যাশনাল ক্যান্সার সেন্টার হাসপাতালে ফুসফুসের  অ্যাডেনোকার্সিনোমা জন্য অস্ত্রোপচার করেছিলেন। ফুসফুসের অ্যাডেনোকার্সিনোমা হল ক্ষুদ্র কোষের ফুসফুসের ক্যান্সারের সবচেয়ে সাধারণ প্রকার যা শ্লেষ্মা জাতীয় পদার্থ নিঃসরণকারী কোষকে প্রভাবিত করে।

[৬] দলটি দেখেছে যে ফুসফুসের ক্যান্সারের সঙ্গে সম্পর্কিত জিনের পরিবর্তন গবেষণায় অংশগ্রহণকারী ধূমপায়ী এবং অধূমপায়ীদের মধ্যে আলাদা ছিল। অধূমপায়ীরা যারা তামাকের ধোঁয়ার সংস্পর্শে এসেছিলেন তারা 'এপিওবিইসিথ্রিবি' জিনের বৃদ্ধি দেখেছেন যা 'এপিওবিইসি' প্রোটিন দ্বারা সৃষ্ট। ধূমপায়ীদের মধ্যে এই ধরনের বৃদ্ধি দেখা যায়নি। এর অর্থ হলো পরোক্ষ ধুমপায়ীরা ফুসফুসের ক্যান্সারে বেশী আক্রান্ত হচ্ছেন। সূত্র: জাপানটাইমস। সম্পাদনা: কামরুজ্জামান 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়