শিরোনাম
◈ জি এম কাদেরের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনে বাধা নেই : হাইকোর্ট ◈ ১০ টাকায় টিকিট কেটে চক্ষু পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী ◈ বন্দি জঙ্গিরা যেন রাষ্ট্রবিরোধী তৎপরতা চালাতে না পারে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা থেকে দুর্নীতি নির্মূল করাই আমাদের লক্ষ্য: হাইকোর্ট ◈ মুজিব কোট পরলেই মুজিব সৈনিক হওয়া যায় না: কাদের ◈ ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা মামলায় সাক্ষ্য দিলেন পরীমণি ◈ অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগকারিদের জন্য বিশেষ সুযোগ  ◈ রংপুর সিটি নির্বাচনে মোস্তাফাকে লাঙ্গলের মেয়র প্রার্থী ঘোষণা রওশনের ◈ পুলিশে ছেয়ে গেছে চীনের রাজপথ ◈ টাঙ্গাইলে বাসচাপায় দুই ব্যাংক কর্মকর্তা নিহত

প্রকাশিত : ২৩ নভেম্বর, ২০২২, ০৮:১৯ সকাল
আপডেট : ২৩ নভেম্বর, ২০২২, ০৫:১০ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

দ্বিতীয় স্বামীর হাতে প্রথম স্বামী খুন, আটক ২

রানা ফখরুল

আব্দুল্লাহ আল আমীন, ময়মনসিংহ: নৃশংসভাবে হত্যা করে ভারতে আত্মগোপনের প্রস্তুতিকালে শ্বশুরবাড়িতে জামাই খুনের ঘটনায় মূলহোতাসহ ২ আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১৪ ব্যাটালিয়ন। 

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় শ্বশুরবাড়িতে দ্বিতীয় স্বামীর হাতে প্রথম স্বামী খুন ও স্ত্রী আকলিমা খাতুনকে দা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে মর্মে খবর পাওয়া যায়। ঘটনাটি বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়াতে গুরুত্বের সঙ্গে প্রচারিত হলে দেশব্যাপী ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে। ফলশ্রুতিতে র‌্যাব-১৪ ছায়াতদন্ত এবং গোয়েন্দা নজরদারি শুরু করে। 

এ ঘটনায় নিহতের বড় ছেলে হাফেজ ছানিম সারোয়ার বাদী হয়ে একজনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামি করে থানায় একটি হত্যা মামলা করে।

প্রাথমিক তদন্ত ও জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ঘটনার দুই দিন পূর্বে ফখরুল তার শ্বশুরবাড়িতে আসেন। বুধবার রাত আড়াইটার দিকে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ঘরের বাইরে যান তিনিসহ তার স্ত্রী আকলিমা আক্তার ও ৮ বছরের মেয়ে তমা। স্ত্রী-সন্তান টয়লেটের কাজ সেরে আগে ঘরে চলে যান। পরে ফখরুল টয়লেট সেরে বের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপাতে থাকে হামলা চালায় আকলিমার সাবেক স্বামী রাজিব ওরফে রানা। ফখরুলকে বাঁচাতে গেলে আকলিমাকেও এলোপাতাড়ি কোপানো হয়। এতে ঘটনাস্থলেই ফখরুল মারা যান। আকলিমার চিৎকারে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে আইসিইউতে প্রেরণ করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে ১টি দা, টর্চ লাইট ও লাঠি উদ্ধার করা হয়েছে। 

আসামি রাজিব জানায়, ঘটনার পর থেকেই আসামি নিজে এবং এ মামলার সন্দিগ্ধ আসামি রানা দেশের বিভিন্ন স্থানে পলাতক ছিলেন। সর্বশেষ দুই দিন আগে রাজশাহী সীমান্ত দিয়ে ভারতে আত্মগোপনের পরিকল্পনা করেন। সে মোতাবেক রাজিব রাজশাহীর তানোরে যান। কিন্তু সাম্প্রতিক ঘটনায় সীমান্তে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার কারণে ভারতে পলায়নের পরিকল্পনা পিছিয়ে দেন। ভারতে আত্মগোপনের জোর প্রস্তুতি গ্রহণ শুরুকালীন তিনি ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহের জন্য আসলে র‌্যাবের একটি চৌকস টিমের হাতে ধরা পড়েন।

প্রতিনিধি/এইচএ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়