শিরোনাম
◈ সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসী অশুভ শক্তি বিএনপিকে প্রতিহত করতে হবে: ওবায়দুল কাদের  ◈ রাজধানী কারওয়ান বাজারে যমুনা এক্সপ্রেসের বগি লাইনচ্যুত ◈ মুজিবনগর দিবস, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা ◈ তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকলে সন্ধ্যায় লোডশেডিং বাড়তে পারে ◈ বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে আরও ৫০ বিজিপি সদস্যের অনুপ্রবেশ ◈ মহেশখালী সমন্বিত উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ আইনের খসড়া আজ মন্ত্রিসভায় উঠছে ◈ গাজীপুরে কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণে চীনা নাগরিকের মৃত্যু ◈ প্রধানমন্ত্রীর সৌদি আরব ও গাম্বিয়া সফর বাতিল ◈ এ বছর জিডিপি প্রবৃদ্ধি হতে পারে ৫.৭%: আইএমএফ ◈ মার্চ মাসে সারাদেশে ৬২৪ সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫৫০, আহত ৬৮৪ 

প্রকাশিত : ০২ মার্চ, ২০২৪, ০১:৫১ রাত
আপডেট : ০২ মার্চ, ২০২৪, ০২:৪৬ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

নিখোঁজের ৫ দিন পর এনবিআর’র সহকারী মহাপরিচালকের লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীতে থেকে নিখোঁজের ৫ দিন পর মুন্সীগঞ্জের ধলেশ্বরী নদী থেকে এনবিআর কর্মকর্তা কামাল হোসেনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার (১ মার্চ) দুপুরে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মালির পাথরের কাছে ধলেশ্বরী নদীতে মরদেহটি ভাসতে দেখা যায়। পরে নৌ পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। 

জানা গেছে, কামাল হোসেনের মরদেহ উদ্ধারের পর তার পকেটে থাকা জাতীয় পরিচয়পত্রের ঠিকানা দেখে তার গ্রামের বাড়ি ফরিদপুরের বোয়ালমারীর পশ্চিম কামারগ্রামে জরুরি বার্তা পাঠায় পুলিশ। এরপর তার বাবা আলী আফজাল রাতে এসে তার মরদেহ শনাক্ত করেন। কামাল হোসেন ৩৭তম বিসিএস কর্মকর্তা। তিনি এনবিআর আগারগাঁও অফিসে সহকারী মহাপরিচালকের দায়িত্বে ছিলেন।

আফজালের সঙ্গে থাকা কামালের খালা লতিফা বেগম জানান, এনবিআর কর্মকর্তা কামাল হোসেন মিরপুর ১০ নম্বরে তার মা ও ছেলেকে নিয়ে বাস করতেন। গত ২৬ ফেব্রুয়ারি রাত ৮টায় বাসার পাশে হাঁটতে বের হন। কিন্তু রাত ১০ টায়ও বাসায় না ফেরায় মা সামসুননাহার ফোন করে ফোন বন্ধ পান। এরপর থেকে কামাল নিখোঁজ। পরদিন ২৭ ফেব্রুয়ারি পল্লবী থানায় জিডি করেন তার মা।

লতিফা বেগম বলেন, সরকারের রাজস্ব বাড়ানোর ক্ষেত্রে কামাল ভূমিকা রাখতেন। এসব কারণে তার শত্রুতা রয়েছে। লাশের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে, দাঁতও ভেঙে দেওয়া হয়েছে। তার ধারণা, হত্যার পর লাশ নদীতে ফেলে দেয়। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। এই হত্যার পেছনে কোনও চক্র জড়িত রয়েছে।

মুন্সীগঞ্জের মুক্তারপুর নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সাজ্জাদ করিম খান বলেন, মৃত্যুর রহস্য উদঘাটনের কাজ করছে পুলিশ। তার সর্বশেষ মোবাইলের লোকেশন এবং কল লিস্ট নিয়ে কাজ চলছে।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়