শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৮ নভেম্বর, ২০২২, ০৯:০৫ রাত
আপডেট : ২৮ নভেম্বর, ২০২২, ০৯:০৫ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে উদ্যোক্তাদের কাজ করার আহবান ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ডিসি'র

আলোচনা সভা

এএইচ রাফি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ডিজিটাল সেন্টারের এক যুগপূর্তি উদযাপিত হয়েছে। সোমবার (২৮ নভেম্বর) জেলা শহরের দি আলাউদ্দিন সঙ্গীতাঙ্গনে আয়োজিত আলোচনা সভা ও কেক কাটার মধ্য দিয়ে যুগপূর্তি উদযাপিত হয়। এসময় উপস্থিত উদ্যোক্তাদের স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে আন্তরিকতার সাথে কাজ করার আহবান জানানো হয়।

জেলা প্রশাসন আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক মো. শাহগীর আলম। 

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. জিয়াউল হক মীর এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, সিভিল সার্জন ডা. একরামউল্লাহ, পৌর সভার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল কুদ্দুস।  

সভার শুরুতেই জেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের ডিজিটাল সেন্টারের নারী-পুরুষ উদ্যোক্তাগণ তাদের সফলতার কথা তুলেন। এসময় জেলা প্রশাসকের সাথে তারা ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারে সাধারণ মানুষকে সেবা প্রদান এবং তাদের অভিজ্ঞতার কথা জানান। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক মো. শাহগীর আলম বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অন্যান্য অবদান এই ডিজিটাল সেন্টার। ডিজিটাল সেন্টার চালুর ফলে বিভিন্ন সেবা এখন মানুষের হাতের নাগালে। অনেক সেবা শহরে না এসেও সাধারণ ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার থেকেই নিতে পারছেন। পাশাপাশি ডিজিটাল সেন্টার চালুর ফলে অনেক যুবকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হয়েছে। ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে অনেক বেকার যুবক এখন লাখপতিও হয়েছেন।

এসময় জেলা প্রশাসক সরকারি নির্ধারিত ফি'র বাইরে অতিরিক্ত টাকা যেন না নেওয়া হয়, তাই হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, যে উদ্যোক্তারা ভাল করবেন আমি দলমত নির্বিশেষে তাদের পাশে থাকবো। উদ্যোক্তাদের ব্যক্তিগত থেকে শুরু করে যে কোন সমস্যায় আমি সহায়তা করবো। কিন্তু যারা ৫০টাকার কাজ ৫০০টাকা নিবে তাদের পাশে আমি নেই। আমি চাই উদ্যোক্তারা সফলতার দিকে এগিয়ে যাক। স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে উদ্যোক্তাদের আন্তরিকতার সাথে কাজ করার আহবান জানান তিনি। 

পরে সেরা ৬জন উদ্যোক্তাদের ক্রেস্ট প্রদান করে সম্মাননা জানানো হয়। কেক কেটে একযুগ পূর্তি উদযাপন করা হয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ফয়সাল আহমেদ।

উল্লেখ্য, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ১০০টি ইউনিয়ন ও ৫টি পৌরসভায় ২০৯জন উদ্যোক্তা রয়েছেন। তারা ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে বিভিন্ন সেবা দিয়ে আসছেন। 

প্রতিনিধি/জেএ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়