শিরোনাম
◈  সরকার থেকে বরাদ্দ করলে সংসদ সদস্যদের গাড়ি আমদানির প্রয়োজন নেই: সংসদে আলোচনা ◈ ঈদে যানজট এড়াতে ডিএমপির ২২ নির্দেশনা ◈ ব্রিকসকে দেওয়ার মতো অনেক কিছু রয়েছে বাংলাদেশের: ডা. দীপু মনি ◈ পল্টনে ফাইন্যান্স টাওয়ারের আগুন নিয়ন্ত্রণে ◈ নেপিয়ার ঘাস খেয়ে মারা গেলো খামারের ২৬ গরু ◈ এমপি আনার হত্যা তদন্তে কোনো চাপ নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ তারেক রহমানসহ পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী ◈ সাধারণ নাগরিকের মতো করেই ড. ইউনূসের বিচার হচ্ছে: আইনমন্ত্রী ◈ ড. ইউনূসের কথা অসত্য, জনগণের জন্য অপমানজনক: আইনমন্ত্রী ◈ সরকারের ব্যাংকঋণে বেসরকারিখাতে বিনিয়োগ ব্যাহত হবে: সিপিডি

প্রকাশিত : ১৭ মে, ২০২৪, ০৩:৫১ দুপুর
আপডেট : ১৭ মে, ২০২৪, ০৩:৫১ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

আড়িখোলা স্টেশনে ট্রেনের স্টপেজ দাবিতে মানববন্ধন

বিল্লাল হোসেন, কালীগঞ্জ: [২] কিশোরগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী ‘এগারো সিন্ধুর এক্সপ্রেস’ ও চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা ‘চট্টলা এক্সপ্রেস’ ট্রেন দুটির গাজীপুরের কালীগঞ্জের আড়িখোলা স্টেশনে স্টপেজ দাবিতে মানববন্ধন করেছেন সাধারণ যাত্রীরা।

[৩] শুক্রবার (১৭ মে) সকালে আড়িখোলা স্টেশনে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। পরে বিক্ষুব্ধরা ট্রেন স্টপেজ দাবিতে বিভিন্ন রকম স্লোগান দিতে থাকে। এসময় রেলওয়ে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী স্টেশনটি তাদের আয়ত্বে নিয়ে নেন এবং শান্তিপূর্ন ভাবে মানববন্ধন করা নির্দেশ দেন।

[৪] মানববন্ধনে বক্তব্য দিতে গিয়ে রেল যোগাযোগ আধুনিকায়ন করায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে মানব বন্ধনের আহবায়ক খন্দকার মুরাদ বলেন, বর্তমান সরকারের অনেকগুলো সাফল্যের মধ্যে অন্যতম সাফল্য হলো রেল যোগাযোগকে উন্নত করা। ইতিমধ্যে অন্যান্য অঞ্চলের মানুষ এ সেবা থেকে সুবিধা পেলেও আমরা রাজধানী শহরের নিকটাবর্তী জেলার মানুষ হয়েও তা থেকে সম্পূর্ণ বঞ্চিত। সকল যাত্রীদের পক্ষ থেকে স্থানীয় সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা আখতারুজ্জামানের কাছে থেকে স্বাক্ষরিত একটি দরখাস্ত আমরা রেল মন্ত্রনালয়ের দপ্তরে দেওয়ার চেষ্টা করছি। আশা করছি সরকার আমাদের জন্য দুটি ট্রেন স্টপেজের ব্যাবস্থা করে দিবে।

[৫] প্রতিদিন ঢাকায় যাতায়াত করে এমন এক যাত্রী মোহাম্মদ বাহার জানান, আমি ঢাকায় ব্যবসা করি প্রতিদিন আমাকে যাতায়াত করতে হয়। সকালবেলা ট্রেন মিস করলে আর ট্রেনে যাওয়ার কোন সুযোগ থাকে না। বাই রোডে যেতে অনেক সময় লেগে যায়। 

[৬] আরেক চাকরিজীবী যাত্রী সোহরাব মিয়া জানান, ভোর বেলা কোন কারণে ট্রেনে যেতে না পারলে অফিস টাইম ধরতে পারিনা।

[৭] এ বিষয়ে আড়িখোলা রেলস্টেশন মাষ্টার মো. আরমান হোসেন  প্রতিবেদক জানান, মাত্র ২টি ট্রেন এখানে স্টপেজ দেয়। তার মধ্যে ১টি অনেক ভোরে, আরেকটি সকালে। বাকি দিনের মধ্যে আর কোন ট্রেন নেই। এই দুইটি ট্রেনের জন্যই যাত্রী হয় অনেক। অনেকে টিকেট করে ফেরৎ যান উঠতে না পেরে। আরো ২টি ট্রেন যদি এখানে স্টপেজ দেয় তাহলে স্টেশনের আয় বাড়বে এবং এ এলাকার মানুষেরও উপকার হবে।

প্রতিনিধি/একে

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়