শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৪ জানুয়ারী, ২০২২, ০১:৫৮ রাত
আপডেট : ২৪ জানুয়ারী, ২০২২, ০১:৫৮ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

এন্ড্রয়েড মোবাইল ব্যবহারে বাধা পেয়ে আত্মহত্যা গৃহবধূর!

নিউজ ডেস্ক: শরীয়তপুর ভেদরগঞ্জে মোবাইল ব্যবহারে নিষেধ করায় স্বামীর সঙ্গে অভিমান করে তারা বানু নামের এক গৃহবধূ গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানার চরভাগা ইউনিয়নের দেওয়ান কান্দি গ্রামে ঘটনা ঘটে। এরইমধ্যে তারা বানুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

মৃত তারা বানু একই ইউনিয়নের দুলারচর বাশতলা ফজল হাওরাদার গ্রামের কুদ্দুস আলী সরদারের স্ত্রী। তিনি একই ইউনিয়নের খাঁন কান্দিগ্রামের আকবর খাঁনের মেয়ে।

সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান হাওলাদার এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৮-৯ বছর আগে একই ইউনিয়নের ফজল হাওলাদার গ্রামের কুদ্দুস আলী সরদারের সঙ্গে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় তারা বানুর। বিয়ের পর থেকে বেশি সময় ঢাকা ছিলেন কুদ্দুস। তাদের সংসারে সায়মা (৬) নামের একটি মেয়ে রয়েছে। সম্প্রতি পারিবারিক বিষয় নিয়ে স্বামীর সঙ্গে মোবাইলে মনোমালিন্য চলে তারা বানুর। পরে গত শুক্রবার তারা বানুকে এন্ড্রয়েড মোবাইল সেট ব্যবহার করতে নিষেধ করে ঢাকা চলে যান স্বামী কুদ্দুস। এসব বিষয়ে স্বামীর সঙ্গে অভিমান করে আজ বিকেলে সবার অগচরে ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন তারা বানু। পরে বাড়ির লোকজন বিষয়টি থানায় অবগত করলে রাতে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতেরমরদেহ উদ্ধার করে।

এদিকে এ ঘটনায় তারা বানুর হয়ে তার বাবার বাড়ির কারো কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

সখিপুর থানার ওসি জানান, প্রাথমিক সুরতহালে গৃহবধূ তারা বানু গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার আলামত পাওয়া গেছে। মরদেহের ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন দেখে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ

  • সর্বশেষ