শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৩ জানুয়ারী, ২০২২, ০৩:৩০ রাত
আপডেট : ২৩ জানুয়ারী, ২০২২, ০৩:৩০ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

আজম খান: জাফর ইকবাল স্যারের দোষটা আসলে কী?

আজম খান: অধ্যাপক জাফর ইকবালের সমালোচনা করা সোজা। তাঁর সঙ্গে যারা সামনে বসে দুই ঘণ্টাও আড্ডা দিয়েছে তারা সবাই জানে এই লোকটা কতোটা সহজ-সরল এবং ভালো মানুষ। কোপানের পরেও হামলাকারীর প্রতি কোনো রাগ-ক্ষোভ না রেখে উল্টা একটা ছেলের জীবন কীভাবে শেষ হয়ে গেলো সেজন্য মন খারাপ করা জাফর ইকবালকে দিয়েই সম্ভব। তার সমালোচনা করা অনেককেই আমি ব্যক্তিগতভাবে চিনি। ব্যক্তিজীবনে তারা কী পরিমাণে অসভ্য এবং অসৎ সেটা খুব ভালো করে জানি। কচি পোলাপানের মধ্যে যেগুলো সমালোচনা করে তাদের খুব একটা চিনি না। গত কয়েকদিন ধরে এই নধর ছানাগুলো জাফর ইকবালকে ট্রল করতে করতে শেষ। যেন জাফর ইকবাল শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় চালান। তিনি এবং তাঁর স্ত্রী ২০১৮ সালে সেখানের চাকরি ছেড়ে দিয়ে চলে গেছেন তা এই কচি নধর ছানাগুলো জানে না।

আরও জানে না কোপ খাওয়ার পর থেকে জাফর ইকবাল আড়ালে থাকতে চান। কিন্তু কচি নধর ছানাগুলো তার এই ব্যক্তিগত ব্যাপারটাকে সম্মান করতে চায় না। কারণ তারা জানে জাফর ইকবাল ভালো মানুষ। তাঁর বিরুদ্ধে জেনে হোক আর না জেনে হোক যেকোনো কিছু বলা যাবে। জাফর ইকবাল কোপ দিতে আসবে না। কিন্তু জাফর ইকবালকে কোপানোর জ্ন্য যে বিশেষ গোষ্ঠী দায়ী তাদের বিরুদ্ধে কিছু বলতে পারবে না। জানে বললেই কুল্লুখালাস। বরং তাদের সঙ্গে বাদ্যযন্ত্রবিহীন কাওয়ালির আয়োজন করলে সুবিধা। সেফ সাইডে থাকা যাবে, ব্যালেন্স করা যাবে। নধর ছানাগুলো এটা বোঝে না এই ব্যালেন্সের ব্যাপারটা তাদের মতো ভালো বুঝলে জাফর ইকবালের কোপ খেয়ে আহত হতে হয় না। বরং এই সরকারের পুরো আমলটা ভিসি হয়েই কাটাতে পারতেন।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়