প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চা বিক্রেতা মাজেদা বিপুল ভোটে নির্বাচিত

নিউজ ডেস্ক : তৃতীয় ধাপে গত ২৮ নভেম্বর পাবনার চাটমোহর উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ নির্বাচনে উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়নের ১, ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডে সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন চা বিক্রেতা মাজেদা খাতুন। তিনি মূলগ্রাম ইউনিয়নের মাঝগ্রামের বাসিন্দা। চাটমোহর রেলস্টেশনের পাশে তার একটি চায়ের দোকান রয়েছে। তিনি নিজেই চা বিক্রি করেন। ঢাকা পোস্ট

স্থানীয়রা জানান, হতদরিদ্র মাজেদা একজন সংগ্রামী নারী। তিনি চা বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছেন। নির্বাচন করে তিনি জয়ী হয়েছেন। প্রথমে মাজেদা ভোটে দাঁড়াতে রাজি না হলেও এলাকাবাসীর জোরাজুরিতে ভোট করেন। এলাকার লোকজন তার নির্বাচনী খরচ দিয়েছে। তার প্রতিদ্বন্দ্বী অনেক শক্তিশালী প্রার্থী থাকলেও তাকে ভোট দিয়ে জয়ী করা হয়েছে।

চাটমোহর রেলবাজারের ব্যবসায়ী সুজন হোসেন বলেন, আমার দোকানের পাশে তার দোকান হওয়াতে তাকে আমি কাছে থেকে চিনি। তিনি প্রতিদিন রুটিন অনুযায়ী চায়ের দোকান খোলেন। তার দোকানে মানুষের ভিড় লেগেই থাকে।

নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য মাজেদা খাতুন বলেন, আমি একজন হতদরিদ্র গরিব মানুষ। আমাকে মানুষ ভালোবেসে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করেছে। মানুষের এই ভালবাসার প্রতিদান আমি দিতে চাই। বিশেষ করে গ্রামের অবহেলিত নারীদের পাশে থেকে আমার সাধ্য অনুযায়ী তাদের সাহায্য সহযোগিতা করতে চাই। তবে আমার যে চা বিক্রির ব্যবসা সেটা আমি বন্ধ করব না। সব কার্যক্রম শেষ করে সময় পেলেই আমি চা স্টলে বসে চা বিক্রি করব। এখান থেকেও মানুষের সেবা করব।

চাটমোহর উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান রাশেদুল ইসলাম বকুল বলেন, মাজেদা খাতুন একজন সংগ্রামী নারী। নিজে চা বিক্রি করে সংসার চালান। তিনি জনগণের ভোটে ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তাকে ইউনিয়ন পরিষদে স্বাগতম।

চাটমোহর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আলমগীর হোসাইন বলেন, মূলগ্রাম ইউনিয়নে সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডে একজন চা বিক্রেতা ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন বলে শুনেছি। তার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে অভিনন্দন জানাব।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত